পুঠিয়ায় অবশেষে বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে অনশন ভাঙলো কলেজছাত্রী

September 22, 2018 at 5:46 pm

পুঠিয়া প্রতিনিধি:

রাজশাহীর পুঠিয়ায় বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশন করা কলেজ ছাত্রী অবশেষে পুলিশের হস্তক্ষেপে বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে অনশন ভাঙলেন। গতকাল শুক্রবার (২১ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ১০ টার সময় পুঠিয়া থানা পুলিশের উপস্থিতিতে বিয়ের আশ্বাস দিলে ওই তরুণী অনশন ভাঙে।

“পুঠিয়ায় বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে কলেজ ছাত্রীর অনশন” শিরোনামে সিল্কসিটি নিউজে সংবাদ প্রকাশ হলে সংবাদটি রাজশাহীর পুলিশ সুপারের নজরে আসে। তাৎক্ষনাত পুঠিয়া থানা পুলিশ কে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিলে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাকিল উদ্দিন আহম্মেদ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে অনশন ভাঙ্গান।

গত শুক্রবার দুপুরে উপজেলার পশ্চিম তারাপুর গ্রামে প্রেমিকের বাড়িতে বিয়ের দাবীতে অনশন শুরু করে ওই তরুনী। অভিযুক্ত প্রেমিক হলেন, পশ্চিম তারাপুর গ্রামের সাগর আলীর ছেলে রাসেল (২৪) এবং কলেজ ছাত্রী তরুনীর বাড়ি উপজেলার ভালুকগাছি ইউনিয়নের কৈপুকুরিয়া গ্রামে সে উপজেলা সদরে অবস্থিত ইসলামিয়া মহিলা ডিগ্রি কলেজের ২য় বর্ষের ছাত্রী।

অনশনরত তরুনী জানান, গত প্রায় ৬ মাস ধরে রাসেলের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে এরই সুবাদে রাসেল ওই তরুনিকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে তার সাথে একাধীক বার শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। এমনকি সে নিয়মিত তরুনীর বাসায় যাতায়াত করতো। গত বৃহস্পতিবার রাতে সে ওই তরুনীর বাসায় গেলে স্থানীয়রা তাকে আটকে রাখে। তাৎক্ষনাত বিয়ের জন্য রাজি হলেও পরেরদিন শুক্রবার দুপুরে রাসেল কৌশলে তরুনীর বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। পরে বিয়ের দাবীতে কলেজ ছাত্রী তরুনী রাসেলের বাড়িতে অনশনে বসেন। “পুঠিয়ায় বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে কলেজ ছাত্রীর অনশন” শিরোনামে সিল্কসিটি নিউজে সংবাদ প্রকাশ হলে সংবাদটি রাজশাহীর পুলিশ সুপারের নজরে আসে।

তাৎক্ষনাত পুঠিয়া থানা পুলিশ কে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিলে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাকিল উদ্দিন আহম্মেদ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে অনশন ভাঙ্গান।

এব্যপারে থানার ওসি সাকিল উদ্দিন আহম্মেদ জানান, সংবাদ প্রকাশের পর এব্যপারে পুলিশ সুপার এসপি শহিদুল্লাহ ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন। ঘটনাস্থলে পুলিশ উপস্থিত হয়ে বিয়ের আশ্বাস দেয়ায় তরুণী অনশন ভেঙ্গেছে। দুই পক্ষের অভিভাবক ও স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিদের কাছে তরুনীর বিয়ে সম্পূর্ণ করার জন্য দায়িত্ব দেয়া হয়েছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

স/অ

Print