শ্যালিকাকে ধর্ষণের ভিডিও ইন্টারনেটে প্রচারের অভিযোগে ভগ্নিপতি গ্রেপ্তার

June 20, 2017 at 1:20 am

সিল্কসিটিনিউজ ডেস্ক: শ্যালিকাকে ধর্ষণের ভিডিও চিত্র ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় ভগ্নিপতিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় ধর্ষিতা বাদী হয়ে ভগ্নিপতিকে আসামী করে চট্টগ্রামের বন্দর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন এবং তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা দায়ের করে পুলিশ গতকাল সোমবার দুপুরে বন্দরের ঘারমোড়া কাজীপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে ভগ্নিপতি মুরাদকে (৩২) গ্রেপ্তার করে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বন্দর থানার ঘারমোড়া কাজীপাড়া এলাকার বজলুর রহমানের ছেলে মুরাদ মিয়ার সাথে ৭ বছর পূর্বে ধর্ষিতা নারীর বড় বোনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে ভগ্নিপতি মুরাদ তার ছোট শ্যালিকাকে উত্যক্ত করে আসছিল। পারিবারিক কারণে মুরাদের সাথে তার স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হলে ১ মাস পূর্বে গৃহবধূ তার ৫ বছরের শিশুকে নিয়ে তার বাবার বাড়িতে অবস্থান করে।

গত ২৬ মে ভগ্নিপতি তার শ্যালিকাকে মোবাইলে ফোন করে জানায় তার ছেলের জন্য জামা-কাপড় ক্রয় করেছে সে যেন এসে নিয়ে যায়। শ্যালিকা তার মা ও বাবাকে জানিয়ে সরল বিশ্বাসে কাপড় নিয়ে যাওয়ার জন্য বন্দর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় আসলে ওই সময় মুরাদ বন্দর কলাবাগ এলাকার সোবাহান ওরফে পরান বাবুর দোতলা ভবনের নিচতলা ভাড়াটিয়া ফারুকের কক্ষে নিয়ে জোরপূর্ব ধর্ষণ করে এবং ধর্ষণের ভিডিও চিত্র ধারণ করে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়।

মুরাদ শ্যালিকাকে ২ দিন একটি ঘরে আটক রেখে একাধিকবার র্ধষণ করে। গত ২৮ মে মুরাদ শ্যালিকাকে নানা ভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে বিয়ে করে। পরে ১৫ জুন শ্যালিকা কৌশলে উক্ত বাড়ী থেকে পালিয়ে গিয়ে ঘটনাটি তার মা-বাবাকে জানায়। এ ব্যাপারে বন্দর থানার ওসি আবুল কালাম জানান, ধর্ষিতা বাদী হয়ে ভাগ্নপতির বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন এবং তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা করলে ভগ্নিপতিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

Print