বাঘায় শিবির নেতার বাড়ি থেকে পাকিস্তানি পতাকা উদ্ধার

November 8, 2019 at 3:55 pm

নিজস্ব প্রতিবেদক:

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আমোদপুর গ্রামে আইয়ুব আলী নামে এক ছাত্রশিবির নেতার বাড়ি থেকে এক বস্তা ধর্মীয় উগ্রবাদি বই এবং একাধিক কুপনসহ পাকিস্তানী পতাকা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) সন্ধ্যার পর ওই বাড়িতে ছাত্রশিবিরের গোপন বৈঠক চলার খবর পেয়ে সেখানে অভিযান চালায় বাঘা থানা পুলিশ। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তাৎক্ষনিক সটকে পড়ে ছাত্রশিবির নেতারা। পরে আইয়ুব এর বাড়ি তল্লাশি করে তার ঘর থেকে দুই শতাধিক ধর্মীয় উগ্রবাদি বইসহ পাকিস্তানি পতাকা ও দলীয় কূপন জব্দ করে পুলিশ।

আইয়ুব আলী রাজশাহী জেলা ছাত্রশিবিরের আরডি এবং বাঘা উপজেলা ছাত্রশিবিরের সাবেক সভাপতি বলে জানা গেছে। তার পিতার নাম আজগর আলী।

পুলিশ জানায়, বাঘায় আগের যে কোন সময়ের চেয়ে জামায়াতের অঙ্গ সংগঠন ছাত্রশিবির নেতাদের কর্মতৎপরতা বেড়েছে। তারা চলতি জেএসসি পরীক্ষা শুরু হবার আগের দিন আমোদপুর জামে মসজিদে ২০জন পরীক্ষার্থীর মাঝে পরীক্ষা উপকরণ সামগ্রি বিতরণ করেছে। এর এক সপ্তাহ আগে নদীতে ভ্রমনসহ রাতে গোপন বৈঠক ও নৈশভোজের ছবি উপজেলা ছাত্রশিবিরের সভাপতি দুর্জয় আলম সবুজের ফেসবুকে পাওয়া গেছে।

সর্বশেষ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর ছাত্রশিবির নেতা আইয়ুব আলী বাড়িতে ১৫-২০ জন নেতা-কর্মী গোপন বৈঠক করছে এমন তথ্যের ভিত্তিতে সেখানে অভিযানে যায় বাঘা থানা পুলিশ। কিন্তু পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ছাত্রশিবির নেতারা সেখান থেকে সটকে পড়ে। ঘটনার এক পর্যায়ে আইয়ুব আলীর ঘর তল্লাশি করে দুই শতাধিক বই, একাধিক কুপনসহ পাকিস্তানি পতাকা উদ্ধার করে পুলিশ।

স্থানীয় লোকজনের অভিযোগ, বাঘা উপজেলার আমোদপুর গ্রামে জামায়াতের আমির ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মাওলানা জিন্নাত আলীর বাড়ি হওয়ার সুবাদে গ্রামের মসজিদটি জামায়াত-শিবিরের দখলে। দুই বছর আগে জামায়াতের জেলা আমীরসহ রাজশাহীর সকল উপজেলা থেকে আগত ১২জন জামায়াত নেতাকে এই মসজিদ থেকে আটক করা হয়। বর্তমানে এলাকায় ছাত্রশিবিরের তৎপরতা ব্যাপকহারে বেড়েছে। তারা অষ্টম শ্রেণি পড়া তরুন শিক্ষার্থীদের ছাত্রশিবিরের পথে আনার অভিপ্রায়ে পরীক্ষা সংক্রান্ত সামগ্রি বিতরণ করে দলকে শক্তিশালী করার চেষ্টা চালাচ্ছে।

বাঘা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আতিক রেজা জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর ছাত্রশিবির নেতা আইয়ুব আলীর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে একবস্তা বই এবং অর্থ আদায় ও দলে যোগদানের কুপনসহ পাকিস্তানি পতাকা উদ্ধার করেছি। এ ঘটনায় একটি মামলা রুজু হয়েছে।

Print