প্রাচীন মিশরের সমাধিতে বেবুন, বিড়ালের আর দেবতার মূর্তি!

October 11, 2017 at 5:20 pm

সিল্কসিটিনিউজ ডেস্ক

নতুন এক গবেষণায় বলা হয়েছে, আজ থেকে ২ হাজার বছর আগে দেবতাদের সমাধিস্থ করা হতো প্রাচীন মিশরে। দেবতাদের মূর্তি গড়ে বছরের পর বছর ধরে তাদের ধুয়ে-মুছে পরিষ্কার করে ব্যাপক সম্মান প্রদর্শন ও নানা আয়োজনের মাধ্যমে অন্যান্য ‘মৃত’ মূর্তির সঙ্গে তাদের সমাধিস্থ করা হতো।

মিশরের হস্তশিল্পী এবং ভাস্কর্যদের দেবতার নাম ‘পাহ’। তার মূর্তি অনেক পবিত্র ও সম্মানীয় বলে গণ্য করা হতো। এমন কিছু মূর্তি ছিল স্ফিংকস, বেবুন, বিড়াল, অসিরিস এবং মুট এর মূর্তি। প্রাচীন মিশরে পাহ এর মূর্তিকে অন্যান্য সম্মানজনক মূর্তিগুলোর সঙ্গে সমাধিস্থ করা হয়। পাহ এর মন্দিরের পাশেই এমন সমাধির সন্ধান মিলেছে।

পুরাতত্ত্ববিদরা ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে কার্নাকের কাছে একটা কূপ আবিষ্কৃত হয়। সেখানে খনন চালিয়ে ৩৮টি প্রাচীন নিদর্শনের সন্ধান মেলে। পাওয়া গেছে মূর্তি, অরিসিসের অবয়ব, অন্য কোনো মূর্তির বিভিন্ন অংশ, বেবুনের মূর্তি, দেবী মুট এবং আরো দুটো অপরিচিত মূর্তি। আরো মিলেছে একটি বিড়ালের মুণ্ডুর অংশ, চুনাপাথরের মানবমূর্তি, স্ফিংকস এবং অচেনা ধাতব বস্তু।

বিপুল পরিমাণ সমাধিস্থ অসিরিসের মূর্তি পুরাতত্ত্ববিদদের অবাক করে দিয়েছে। অসিরিস ছিলেন উর্বরতা এবং মৃত্যুর দেবতা। পুনর্জন্মের দেবতাও তিনি। এই দেবতার মূর্তির সঙ্গে পাহ এর মূর্তিকে রাখার কারণ হতে পারে পুনর্জন্ম এবং পুনরুত্থানের সঙ্গে জড়িত তিনিও।

আসলে পাহ পুনর্জন্মের অপেক্ষায় রয়েছেন, জানান টেম্পল অব কার্নাক নিয়ে গবেষণারত ফ্রেঞ্চ-ঈজিপশিয়ান সেন্টারের একজন পুরাতত্ত্ববিদ গুইলাম চার্লোক্স। আর এদের পাহাড়া দেয় স্পিংকস। এদের আবার ঘিরে রেখেছে অসিরিসের মূর্তি। এখানে আসলে মনে হয় যে ফারাওয়ের মূর্তিগুলো পুনর্জন্মের অপেক্ষায় রয়েছে।

গবেষণাপত্রটি প্রকাশিত হয়েছে অ্যান্টিকুইটি জার্নালে। সূত্র : ফক্স নিউজ

Print