রাজশাহীতে আন্তর্জাতিক ভলেন্টিয়ার দিবসে এসিডি’র র‌্যালি

নিজস্ব প্রতিবেদক:

‘অন্তর্ভুক্ত ভবিষ্যতের জন্য স্বেচ্ছাসেবক’ এই স্লেগানকে সামনে রেখে বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে রাজশাহীতে ‘আন্তর্জাতিক ভলেন্টিয়ার দিবস’ পালিত হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) রাজশাহীর উন্নয়ন ও মানবাধিকার সংস্থা ‘এ্যাসোসিয়েশন ফর কম্যুনিটি ডেভেলপমেন্ট-এসিডি’ এবং ‘ইউএন ভলেন্টির্য়াস বাংলাদেশ’ যৌথভাবে এই কর্মসূচির আয়োজন করে।

দিবসটি উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় ‘এসিডি’র প্রধান কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি রাজশাহী মহানগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে সাহেব বাজার জিরো পয়েন্টে পয়েন্ট হয়ে আবার পূর্বের স্থানে গিয়ে শেষ হয়।

র‌্যালিতে ‘এসিডি’র ডিরেক্টর (ফিন্যান্স) পংকজ কর্মকার, প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর মো. মনিরুল ইসলাম পায়ের, মো. মিরাজ উদ্দিন তালুকদার, মো. আব্দুর রাজ্জাক, প্রজেক্ট অফিসার আহসানুল্লাহ সরকার রিপন, মিডিয়া ম্যানেজার আমজাদ হোসেন শিমুল, এডভোকেসি অফিসার মো. শরিফুল ইসলাম শামীম ও এসিডির কর্মকর্তাবৃন্দ, রোভার স্কাউট গ্রুপ, বিএনসিসি ও রেঞ্জার ইউনিটসহ দেড় শতাধিক ভলেন্টিয়ার উপস্থিত ছিলেন।

পরে এসিডির প্রধান কার্যালয়ের সামনে সংক্ষিপ্ত এক আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবক দিবস আমাদের সকলের জন্য স্বেচ্ছাসেবীর প্রচার, সরকারকে স্বেচ্ছাসেবীর প্রচেষ্টায় সমর্থন দিতে উৎসাহ প্রদান করে। সেই সাথে দিবসটি স্থানীয়, জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ‘টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা-এসডিজি’ অর্জনে স্বেচ্ছাসেবীদের অবদানকে স্বীকৃতি দেওয়ার একটি সুযোগ। এর মাধ্যমে সরকারের সাথে স্বেচ্ছাসেবী বিভিন্ন সংগঠন, অলাভজনক সংস্থা, অসাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী, যুবক এবং বেসরকারি খাতে কাজ করার একটি সুযোগ তৈরি হয়। স্বেচ্ছাসেবীর মাধ্যমে এসডিজি-১০ এর লক্ষ্য অর্জনসহ সাম্যের প্রতি মনোনিবেশ করাই এবারের আন্তর্জাতিক ভলেন্টিয়ার দিবসের উদ্দেশ্য।

বক্তারা আরও বলেন, দেশের জনশক্তির এক তৃতীয়াংশ হলো যুবক। তাই এই যুবক শ্রেণিকে শক্তিতে পরিণত করতে হবে। যুবক হিসেবে যুবকদের দায়িত্ব নিয়ে কাজ করতে হবে। তথ্যই শক্তি। আর এই তথ্য প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে যুবকরা দেশকে আরও সামনের দিকে এগিয়ে নিতে কাজ করবে। দেশের প্রয়োজনে যুবকরা সংগঠিত হয়ে যে কোনো দুর্যোগ মোকাবেলায় এগিয়ে আসবে এমনটাই আমাদের প্রত্যাশা।

উল্লেখ্য, ১৯৮৫ সালে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে অনুমতি পাওয়া ‘আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবক দিবস‘ প্রতি বছর ৫ ডিসেম্বর পালন করা হয়ে থাকে।

 

স/শা

Print