মিরপুরে বিপিএলের কলরব

January 2, 2019 at 3:22 pm

সিল্কসিটিনিউজ ডেস্ক:

বছর ঘুরে আবারও আসছে বিপিএলের রঙিন আসর। দেশের একমাত্র টি-টোয়েন্টি ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ মাঠে গড়াবে ৫ জানুয়ারি। প্রতিযোগিতাকে সামনে রেখে পড়ে গেছে সাজ সাজ রব।

বিপিএলের মৌসুম এসে গেছে। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামেও ফিরে এসেছে পুরোনো দৃশ্য। খেলোয়াড়দের মেলা বসতে শুরু করেছে সেখানে। ৫ জানুয়ারি থেকে শুরু বিপিএলকে সামনে রেখে ফ্র্যাঞ্চাইজি দলগুলো অনুশীলন করছে একাডেমি মাঠে। অনুশীলন শেষে সংবাদমাধ্যমের সামনে হাজির হচ্ছেন খেলোয়াড়েরা। বিপিএল মাঠে গড়ানোর আগে কাল সেখানেই কিছু ‘বাউন্সার’ ধেয়ে এল সিলেট সিক্সার্সের সাব্বির রহমানের দিকে।
আচরণবিধি ভাঙার অপরাধে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে ছয় মাসের নিষেধাজ্ঞা কাটাচ্ছেন সাব্বির। নিষেধাজ্ঞা শেষ হতে আরও এক মাস বাকি। তার আগেই ঘরোয়া ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ বিপিএলে খেলবেন এই ব্যাটসম্যান। কাল সিলেট সিক্সার্সের প্রতিনিধি হয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে অপ্রিয় প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হলো তাঁকে। ‘বাউন্সারে’ কিছু হুক-পুল খেলে একপর্যায়ে অবশ্য কথা শেষ না করেই চলে যান তিনি।
তার আগে অবশ্য সাব্বির বলেছেন ভুল থেকে শিক্ষা নেওয়ার কথা, ‘কাল (পরশু) রাতে প্রতিজ্ঞা করেছি…২০১৮ সালটা আমার অনেক খারাপ কেটেছে। আজ (গতকাল) নতুন বছরের প্রথম দিন। সামনে তাকিয়ে আছি এখন।’ জাতীয় লিগ আর বিসিএলে খেললেও গত পাঁচ মাস মানসিক অস্থিরতার মধ্যেই কাটিয়েছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে দূরে থাকা সাব্বির। স্বপ্ন দেখছেন বিপিএলে ভালো কিছু করতে, যেন নিষেধাজ্ঞা ওঠার পর আবার ফিরতে পারেন জাতীয় দলে।
এবার সিলেট সিক্সার্সের মূল আকর্ষণ অস্ট্রেলিয়ার ডেভিড ওয়ার্নার। বল টেম্পারিংয়ের অভিযোগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে তিনিও এখন বহিষ্কৃত, ফিরবেন মার্চে। তার আগে বিপিএলেই প্রস্তুতিটা সেরে নেবেন সিলেটের অধিনায়ক। সাব্বির আশাবাদী, ওয়ার্নারের অভিজ্ঞতার সঙ্গে স্থানীয়দের চেষ্টায় বিপিএল থেকে এবার ভালো কিছুই পাবে তাদের দল।
কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস নিয়ে একই রকম আশা এনামুল হক বিজয়ের, ‘খুবই ভালো দল হয়েছে আমাদের। তামিম ভাই আছেন, ইমরুল কায়েস ভাই আছেন, বিদেশিদের মধ্যে শোয়েব মালিক, স্টিভেন স্মিথ, শহীদ আফ্রিদির মতো খেলোয়াড় আছেন। কোচ, ম্যানেজমেন্ট সবাই অনেক সাহায্য করছেন।’
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সম্ভাবনাময় শুরুর পরও জাতীয় দলে ক্রমেই অনিয়মিত হয়ে পড়েছেন এনামুল। সুযোগ পেলেও দিতে পারেন না সামর্থ্যের প্রমাণ। সাব্বিরের মতো এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানও নিজেকে ফিরে পেতে কাজে লাগাতে চান বিপিএলকে, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ দিয়ে জাতীয় দলে ফেরার পর যখন ভালো করতে পারলাম না, তখন থেকে প্রতিটি ম্যাচই আমার কাছে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি। সব সময় তৈরি থাকার চেষ্টা করব। আমি ২০১৯ বিশ্বকাপে খেলতে চাই। এর জন্য যতটুকু পারফর্ম করা দরকার, চেষ্টা করব করতে।’
সাব্বিরের যেমন আছেন ওয়ার্নার, এনামুল তেমনি কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের ড্রেসিংরুমে পাবেন স্মিথকে। এই অস্ট্রেলিয়ানের কাছে এনামুলের জানার আছে অনেক কিছু। কিছু প্রশ্ন তো নাকি তৈরিও করে রেখেছেন, ‘এত বড় সুপারস্টারের কাছে অনেক কিছুই শেখার আছে। আমি নিজেও কিছু প্রশ্ন তৈরি করে রেখেছি। এ ছাড়া আফ্রিদি, শোয়েব মালিক ভাই আছেন। চেষ্টা করব সবার কাছ থেকেই কিছু শিখতে।’
শুরুতে কোনো দল না নিলেও শেষ পর্যন্ত মুশফিকুর রহিমের দল রাজশাহী কিংসে জায়গা হয়েছে শাহরিয়ার নাফীসের। সে জন্য ফ্র্যাঞ্চাইজির প্রতি কৃতজ্ঞ এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। চেষ্টা করবেন পারফরম্যান্স দিয়ে প্রতিদান দিতে। শাহরিয়ারের দৃষ্টিতে এবার সব দলই প্রায় সমান শক্তির হলেও স্থানীয় ক্রিকেটারদের দিক দিয়ে রাজশাহীই এগিয়ে, ‘স্থানীয় ক্রিকেটারদের দিক দিয়ে আমরাই সবচেয়ে ভারসাম্যপূর্ণ দল। আমাদের বিদেশি ক্রিকেটাররাও টি-টোয়েন্টির জন্য দারুণ কার্যকরী। নিজেদের দিনে তারা যেকোনো দলকে হারানোর ক্ষমতা রাখে।’

Print