বাগাতিপাড়ায় ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে শিক্ষক আটক

April 20, 2019 at 9:45 pm

বাগাতিপাড়া প্রতিনিধি:
নাটোরের বাগাতিপাড়ায় ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে আবুল কালাম নামের এক শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার সন্ধ্যায় বাগাতিপাড়ার গফুরাবাদ স্কুল চত্বর থেকে তাকে আটক করা হয়।

আটক শিক্ষক আবুল কালাম উপজেলার চিথলিয়া গ্রামের মৃত আমিন সরদারের ছেলে।

পুলিশ ও সহপাঠীদের সূত্রে জানা যায়, শনিবার বেলা সাড়ে দশটায় শিক্ষার্থীদের স্কুলের ক্লাশ শুরু হয়। চতুর্থ পিরিয়ডে বেলা ১২ টার দিকে ষষ্ঠ শ্রেণীর ইংরেজি বিষয়ের ক্লাশ ছিল। সেসময় বিদ্যুৎ না থাকায় বাগানে ক্লাশ নেওয়ার কথা বলে ওই বিষয়ের শিক্ষক আবুল কালাম ওই শ্রেণীর সব ছাত্র-ছাত্রীদের কক্ষের বাইরে পাঠিয়ে দেন। শুধু ওই ছাত্রীকে পরে বাইরে যাওয়ার কথা বলে কক্ষেই রেখে দেন। সেসময় তার সাথে আরও দুই বান্ধবী ওই কক্ষেই থেকে যায়। এরপর ভুক্তভোগী ছাত্রীকে বান্ধবীদের চোখের সামনে হাত ধরে টেনে নিলে অন্য দুই বান্ধবী সেখান থেকে দৌড়ে পালিয়ে যায়।

তারা আরও জানান, ওই কক্ষে ছাত্রীর শরীরের বিভিন্ন স্থানে স্পর্শ করে যৌন নিপিড়ন করেন শিক্ষক আবুল কালাম। পরে শিক্ষকের হাত থেকে ছিটকে পালিয়ে কক্ষের বাইরে চলে যায় ছাত্রী। এরপর ঘটনাটি জানাজানি হলে অন্যান্য ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যেও ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। পরে বাড়ি গিয়ে ছাত্রী ঘটনাটি তার পরিবারকে জানায়। পরিবারের পক্ষ থেকে বাগাতিপাড়া মডেল থানায় এ সংক্রান্ত অভিযোগ করলে ওই দিন সন্ধ্যায় গফুরাবাদ বাজার সংলগ্ন স্কুল মাঠ থেকে শিক্ষক আবুল কালামকে গ্রেপ্তার করে মডেল থানা পুলিশ। অভিযুক্ত শিক্ষক আবুল কালাম একই স্কুলের প্রধান শিক্ষক আবু সায়েমের সহদোর বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে অভিযুক্তের ছেলে হিমেল সরকার বলেন, তার বাবা একজন সিনিয়র শিক্ষক। তিনি এসব কাজ করতেই পারেন না। তার বাবা ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছেন। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু সায়েমের মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

এ ব্যাপারে ওসি সিরাজুল ইসলাম শেখ পিপিএম বলেন, নিজের স্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে যৌন নিপিড়নের অভিযোগ পেয়ে শিক্ষক আবুল কালামকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

স/অ

Print