রোনালদোর পথ ধরে জুভেন্টাসে যাচ্ছেন মার্সেলো?

July 12, 2018 at 7:23 pm

সিল্কসিটিনিউজ ডেস্ক:

মাঠের বাঁ প্রান্ত থেকে উড়ে আসা ক্রসে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর হেড। বল যখন জালে লুটোপুটি খাচ্ছে, ততক্ষণে কর্নার ফ্ল্যাগের কাছে চলে গেছেন রোনালদো। খুঁজে নিয়েছেন মার্সেলোকে। দুজনে মিলে করছেন বিখ্যাত সেই ‘সিইই’ উদ্‌যাপন। রিয়াল মাদ্রিদের ম্যাচ মানেই তো এমন উদ্‌যাপনের অপেক্ষা। হায়, এমন উদ্‌যাপন আর দেখা যাবে না!
দুদিন হলো রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে বছরের সম্পর্ক চুকিয়ে অতীত হয়ে গিয়েছেন পর্তুগিজ যুবরাজ। রিয়ালের প্রায় প্রতিটি খেলোয়াড়ই রোনালদোকে শুভকামনা জানিয়ে বিদায় জানিয়েছেন। তবে ব্রাজিলিয়ান লেফটব্যাক মার্সেলোর বিদায়ী বার্তাটা রোনালদোর চোখ ভিজিয়ে দিতে পারে। তাঁর প্রতিটি শব্দে বের হয়ে এসেছে নয় বছরের সতীর্থকে হারানোর কান্নায়। সতীর্থকে কতটা ভালোবাসতেন, মার্সেলোর বিদায়ী বার্তার প্রতিটি শব্দে তা ফুটে উঠেছে। আহ্, কী আবেগ, কী ভালোবাসা। একজন সতীর্থ খেলোয়াড়ের প্রতি এমন ভালোবাসা ও সম্মানবোধ খুব কম খেলোয়াড়ই দেখাতে পেরেছেন।
রোনালদোর সঙ্গে গলা ধরে হাঁটছেন, এমন একটি ছবি ইনস্টাগ্রামে দিয়েছেন মার্সেলো। সেই সঙ্গে দীর্ঘ এক বিদায়ী বার্তা, ‘কে ভাবতে পেরেছিল, তাই না ক্রিস? এখনই সময় হয়েছে বিদায় বলার। আমি হলফ করে বলতে পারি, এমন দিন আসবে, কোনো দিন কল্পনা করিনি। কিন্তু জীবনে কোনো কিছুই চিরস্থায়ী নয় এবং আশা করি নতুন অভিযানে তুমি সুখী হবে।’
‘আমরা একসঙ্গে প্রায় ১০ বছর কাটিয়েছি। সুখের, ভালো ফুটবলের, জয়ের, পরাজয়ের এবং দুর্দান্ত সব সময়ের ১০ বছর। তোমার কাছ থেকে অনেক শিখেছি, তোমার মতো আত্মনিবেদন আর কোনো খেলোয়াড়ের মধ্যে দেখিনি। তোমার এবং তোমার পরিবারের জন্য শুভ কামনা জানাচ্ছি।’
‘খেলার আগে আমরা যে আলোচনাগুলো করতাম, সেগুলো খুব মিস করব। ম্যাচের আগেই যেভাবে সঠিক স্কোর বলে দিতে এবং অভিজ্ঞতা ও সমর্থন দিয়ে ফাইনালের আগে যেভাবে আমাদের শান্ত রাখতে, এটাও হারিয়ে খুঁজব আমি। আমি তোমার সঙ্গে খেলতে পেরে গর্বিত শুধু এই কারণেই নয় যে সেরা ফুটবলার, বরং তুমি মানুষ হিসেবেও অসাধারণ। যখন আমি অবসর নেব, তখন বারে বিয়ার পান করতে যাব। সেখানে আমাদের দুজনের ছবি দেখাব আর গল্প করব।’

Print