শুক্রবার , ২ সেপ্টেম্বর ২০১৬ | ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. অপরাধ ও দুর্নীতি
  3. অর্থ ও বাণিজ্য
  4. আইন আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. কৃষি
  7. খেলা
  8. চাকরীর খবর
  9. ছবিঘর
  10. জাতীয়
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দুর্ঘটনা
  13. ধর্ম
  14. নারী
  15. নির্বাচিত খবর

৮৫-তেও মডেলকন্যা

নিউজ ডেস্ক
সেপ্টেম্বর ২, ২০১৬ ৮:৪১ পূর্বাহ্ণ

সিল্কসিটিনিউজ বিনোদন ডেস্ক:

কার্মেন ডেল অরেফিস। বয়স এখন ৮৫। এই বয়সেও ‘বুড়ি’ হননি। দিব্যি চালিয়ে যাচ্ছেন মডেলিং৷ এখনো চোখ ধাঁধানো সুন্দরী! ছিলেন সবচেয়ে কম বয়সি মডেলদের একজন, এখন তিনি বিশ্বের সবচেয়ে বেশি বয়সি মডেল৷ সম্প্রতি জার্মানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডয়চে ভেলে তার সুন্দরী থাকার রহস্য খোঁজার চেষ্টা করেছেন। রাইজিংবিডির পাঠকদের জন্য সেই রহস্য তুলে ধরা হলো-

 

সেই মেয়েটি : ১৯৪৬ সালের এক সকাল। নিউ ইয়র্কের ব্যস্ত রাস্তায় একটা বাস থামল। বাস থেকে নামল ১৫ বছর বয়সি এক কিশোরী৷ তাকে দেখে এক ফটোগ্রাফারের মনে হলো, ‘মেয়েটির চেহারায়, দৈহিক গড়নে মডেল হবার সব উপাদান আছে৷’ সেই মেয়েই কার্মেন ডেল অরেফিস৷ ইটালিয়ান-হাঙ্গেরিয়ান বাবা-মায়ের সন্তান কার্মেনের এভাবেই মডেলিং দুনিয়ায় পদার্পণ৷

 

Del_Orefis

 

দারিদ্র্য তাকে করেছে সুপারস্টার : কার্মেনের জীবনে দারিদ্র্যের কষাঘাত ছিল৷ বাড়িতে টেলিফোন ছিল না বলে কাজ দিতে চাইলেও এজেন্সি তার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারত না৷ অনেক সুযোগ নষ্ট হয়েছে এ কারণে৷ বাবা-মায়ের বাসভাড়া দেওয়ার ক্ষমতা ছিল না বলে রোলারস্কেটিং করে কর্মস্থলে যেতেন কার্মেন৷ তখন বয়স মাত্র ১৫৷

 

পনেরোতেই প্রচ্ছদকন্যা : ১৫ বছর বয়সেই ‘ভোগ’-এর মতো বিখ্যাত ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদকন্যা হন কার্মেল ডেল অরেফিস৷ তখন তিনি সবচেয়ে কম বয়সি মডেলদের একজন৷ ১৯৬৬ সালে প্রথম ছবি মুক্তি পায় তার। ছবির নাম ‘দ্য লাস্ট অফ দ্য সিক্রেট এজেন্টস’৷ তারপর দীর্ঘ ৩০ বছর আর ঐ পথ মাড়াননি৷ তবে ১৯৯৬ সালে আবার রূপালি পর্দা আলোকিত করতে দেখা যায় তাকে৷ সেই থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত চারটি পূর্ণদৈর্ঘ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন৷ এর বাইরে ছয়টি টিভি সিরিয়ালেও অভিনয় করেছেন কার্মেন৷

 

জীবনভর চড়াই-উৎরাই : কৈশোরেই পরিবারের দায়িত্ব নিয়ে খুব কম বয়সে প্রাচুর্যের মুখ দেখেছিলেন কার্মেন৷ শুরুতে ঘণ্টায় সাড়ে সাত ডলার পারিশ্রমিক দিয়ে যারা ভাবতো ‘ঢের হয়েছে’, একসময় তার কাছে মোটা অঙ্কের চেক পাঠিয়েও তারা ধন্য হতেন৷ কিন্তু স্বামীর প্রতারণা নিঃস্ব করেছিল তাকে৷ খুব দৃঢ়চেতা বলেই সামলে উঠে এখনো মডেলিংয়ে টিকে আছেন কার্মেন৷

 

Del_Orefis_01

 

ইতিহাস সাক্ষী : কার্মেনের জন্ম যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে, ১৯৩১ সালে৷ দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কথা খুব মনে আছে৷ সেই যুদ্ধের পরও অনেকগুলো বছর গেল৷ ফেলে আসা সময় নিয়ে ভাবলে আমেরিকান এই মডেলের নিজেকে ‘ইতিহাসের সাক্ষী’ বলে মনে হয়৷ এক সাক্ষাৎকারে তাই কার্মেন বলেছেন, ‘‘আমি জীবনের এমন একটা সময়ে এসে দাঁড়িয়েছি, যখন মনে হচ্ছে যে এ সময়টা একান্তই আমার৷ গোটা একটা ইতিহাসের সাক্ষী আমি৷ দীর্ঘ একটা সময়ের অভিজ্ঞতা আছে আমার ঝুলিতে৷’’

 

এখনো খবরে : এখনো তাকে দেখলে থমকে দাঁড়ায় অনেক তরুণ৷ তা ছাড়া এই বয়সে মডেলিং করছেন বলে মিডিয়ার চোখও থাকে তার দিকে৷ পাঁচ বছর আগেই বিশ্বের সবচেয়ে বেশি বয়সি মডেলের স্বীকৃতি পেয়েছেন তিনি৷ বয়সকে হার মানানো এমন এক তারকার দিকে সবার চোখ থাকাই তো স্বাভাবিক!

 

Del_Orefis_02

 

আজীবন কাজ : ৮৫ বছর বয়সেও মডেলিংয়ে আছেন কার্মেন৷ নিজেকে একেবারেই ‘বুড়ো’ ভাবেন না৷ বরং বয়সের প্রশ্ন তুললেই বলেন, ‘বুড়ো তো সবাইকেই হতে হবে, মরতেও হবে একদিন৷ কিন্তু ঠিক কীভাবে আমরা বুড়ো হবো, কীভাবে জীবনটা কাটাবো- সেটা তো আমাদেরই হাতে৷ তাই আমি জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত কাজ করে যেতে চাই৷’

সূত্র: রাইজিংবিডি

সর্বশেষ - রাজশাহীর খবর