একাকিত্বে ভুগছেন মাহি

বিনোদন ডেস্ক :

ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় নায়িকা মাহিয়া মাহি। ক্যারিয়ারে বেশ কিছু হিট সিনেমা উপহার দিয়েছেন তিনি। কিন্তু মা হওয়ার পর থেকে অভিনয়ে খুব একটা নিয়মিত নন মাহি। তবে সক্রিয় হয়েছিলেন রাজনীতির মাঠে। চলতি বছর রাজশাহী-১ আসন থেকে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশও নিয়েছিলেন মাহি। কিন্তু জয়ের মুখ দেখেননি এই নায়িকা।
পরবর্তীতে সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের জন্য মনোনয়নপত্র কেনেন মাহি। কিন্তু সেখানেও ব্যর্থ হন এই নায়িকা। এর কয়েক দিন পরেই ফেসবুকের এক ভিডিওবার্তায় আচমকা দ্বিতীয় স্বামী রকিব সরকারের সঙ্গেও বিচ্ছেদের ঘোষণা দেন মাহি। এবার জানালেন একাকিত্বে ভুগছেন তিনি।

বুধবার (২১ ফেব্রুয়ারি) রাত ৩টায় নিজের ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন মাহি। ক্যাপশনে অভিনেত্রী লিখেছেন— ‘একা একা লাগে।’

ভিডিও বার্তায় মাহি জানিয়েছিলেন, আসলে কী কারণে একটি ছাদের নিচে দুইটি মানুষ কেন ভালো নেই, সেটি তৃতীয় পক্ষ কেউ বলতে পারবে না সেই দুইজন মানুষ ছাড়া। আর তাই সব কিছু মিলিয়েই দুজন দুজনের প্রতি সম্মান রেখেই আলাদা হচ্ছেন তারা। এমনকি অনেক আগে থেকেই আলাদা থাকছেন মাহি-রকিব।

এদিন ছেলে ফারিশকে নিয়ে অভিনেত্রী বলেন, আমার ছেলেকে নিয়েও আপনারা অনেকে খারাপ কমেন্টস করেন, সেগুলো দেখে মা হিসেবে আমার বুকটা ফেটে যায়। কোনো বাচ্চাকে নিয়ে এমন খারাপ কমেন্টস করবেন না, সে যেমনি হোক না কেনো দেখতে।

আগের মতো এখন চলচ্চিত্রে নিয়মিত নন মাহি। রাজনীতিতেও নিজের শক্ত অবস্থান গড়তে পারলেন না। একদিকে দ্বিতীয় সংসারও ভাঙল, অন্যদিকে অভিনেত্রীর ছেলের গায়ের রং নিয়েও রয়েছে নানান সমালোচনা। সব মিলিয়ে বলা যায়, বিষণ্নতায় ভুগছেন মাহি।

প্রসঙ্গত, ২০২১ সালে রাজনীতিবিদ ও ব্যবসায়ী কামরুজ্জামান সরকার রকিবকে বিয়ে করেন মাহিয়া মাহি। এটি মাহি ও রকিবের দ্বিতীয় বিয়ে ছিল। এর আগেও ২০১৬ সালের ২৪ মে সিলেটের ব্যবসায়ী পারভেজ মাহমুদ অপুকে বিয়ে করেছিলেন মাহি। এর কয়েক বছর পরেই ২০২০ সালে মে মাসে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে দেওয়া এক পোস্টে পারভেজ মাহমুদ অপুর সঙ্গে বিচ্ছেদের কথা জানান মাহি।