বাঘায় গায়ে গোবর লাগিয়ে ছিনতাইয়ের চেষ্টায় আটক ২

৯৯৯ নম্বরে কল

বাঘা প্রতিনিধি:
রাজশাহীর বাঘায় এক নারীর গায়ে গোবর লাগিয়ে অভিনব কায়দায় ছিনতাইয়ের চেষ্টায় ২ জনকে আটক করা হয়েছে। আজ রোববার (৮ ডিসেম্বর) বেলা ১১টার দিকে বাঘা সোনালী ব্যাংকের সামনে এ ঘটনা ঘটেছে।

জানা যায়, কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর উপজেলার বাংলা বাজার দক্ষিণপাড়া গ্রামের শহিদুল ইসলামের স্ত্রী শাহানারা বেগম (৬০) তার পিতা মরহুম আবদুল হামিদের পেনশনের টাকা উত্তোলনের জন্য বাঘা সোনালী ব্যাংকে আসেন। টাকা উত্তোলন করে ব্যাংক থেকে নিচে নেমে আসেন। এ সময় পাবনার ঈশ্বরদীর আম বাগান এলাকার মৃত আশরাফ মন্ডলের ছেলে আবদুস সালাম (৬৫) ও একই এলাকার মৃত নুর মোহাম্মদের ছেলে ইনতাজ আলী (৬০) ওই নারীর গায়ে অভিনব কায়দায় গোবর লাগিয়ে দেন। এই দুই প্রতারকই তাকে গোবর ধুয়ে দেয়ার জন্য বাঘা পৌরসভার মধ্যে টিউবয়েলের কাছে নিয়ে যায়। সেখানে ওই নারীর ব্যাগে থাকা টাকা ছিনতাই করার চেষ্টা করে। এ সময় স্থানীয় অন্তর খান নামের এক যুবক ৯৯৯ নম্বরে কল করে। কল পাওয়ার সাথে সাথে বাঘা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে ওই দুই প্রতারককে আটক করে। তবে ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌছানোর আগে দুই প্রতারককে স্থানীয়রা গণধোলাই দেয়। গণধোলায়ে তারা আহত হয়। আহত অবস্থায় পুলিশের সহযোগিতায় তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়।

এ বিষয়ে শাহানারা বেগম বলেন, আমার বাবা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ছিলেন। তার পেনশনের টাকা উত্তোলন করার পর দুই প্রতারক আমার গায়ে কৌশলে গোবর লাগিয়ে টাকা ছিনতায়ের চেষ্টা করে। স্থানীয়দের সহযোগিতায় রক্ষা পেয়েছি।

বাঘা থানার ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে দুই প্রতারককে আটক করা হয়েছে। তবে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

 

স/শা

Print