বগুড়া জেলা আ’লীগের সম্মেলন সভাপতি মজনু ও সম্পাদক রিপু

বগুড়া প্রতিনিধি:

আজ শনিবার বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে । এতে বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক মজিবর রহমান মজনুকে সভাপতি এবং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপুকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করা হয়।

শনিবার বিকেলে সম্মেলনে বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি- সম্পাদকসহ একাংশের কমিটি ঘোষণা করেন। দ্বিতীয় অধিবেশনের সভাপতি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম। এছাড়া সম্মেলনেটি জামান নিকেতা সহ-সভাপতি, মঞ্জুরুল আলম মোহন, সাগর কুমার রায় ও আসাদুর রহমান দুলু যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এবং মাসুদুর রহমান মিলন অর্থ সম্পাদকের দায়িত্ব পেয়েছেন।

এর আগে সকালে আলতাফুন্নেছা খেলার মাঠে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন ও বেলুন-পায়রা উড়িয়ে এই সম্মেলনের উদ্বোধন করেন সম্মেলনের উদ্বোধক বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি-লীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম।

এ সময় মোহাম্মদ নাসিম বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আছে বলে আত্মতৃপ্তি এবং অহংকারের সুযোগ নেই। মনে রাখতে হবে জনগণের ভোটেই আমরা ক্ষমতায় এসেছি। সুতরাং ক্ষমতায় থেকে জনগণের সাথে খারাপ আচরণ করা যাবে না। মোহাম্মদ নাসিম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অন্ধকার থেকে আলোকিত হয়েছে বাংলাদেশ। তবুও স্বাধীনতা বিরোধীদের চক্রান্ত থেমে নেই। চক্রান্তকারীদের বিরুদ্ধে সজাগ থাকতে হবে।

সম্মেলনে প্রধান বক্তা ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক। তিনি বলেন, এক সময় বগুড়া ছিল সন্ত্রাসের অভয়ারণ্য। সেই বগুড়া আজ সুন্দর শান্তির শহরে পরিণত হয়েছে।

নানক আরো বলেন, বেগম খালেদা জিয়া দুর্নীতির দায়ে জেলে। বিক্ষোভ-ভাংচুর করে খালেদার মুক্তি আসবে না। খালেদা জিয়াকে মুক্তি করতে চাইলে আইনের মাধ্যমেই করতে হবে। মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ-ভাংচুর করে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করার কেউ অপচেষ্টা করলে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা প্রতিহত করবে।

নানক বলেন, আওয়ামী লীগের কর্মীদের জন্যই আওয়ামী লীগ টিকে আছে। কর্মীরাই আওয়ামী লীগের নেতা তৈরি করে। কমিটিতে স্বজনপ্রীতির কোন সুযোগ থাকবে না। ত্যাগীরা দল থেকে বিতাড়িত হবে, অনুপ্রবেশকারীরা দলে নেতৃত্ব দিবে, এটি হতে দেয়া যাবে না।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও রাসিক মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন। মেয়র লিটন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কারো কাছে মাথা নত করেননি। আমরাও কারো কাছে মাথা নত করবো না। আজ একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় খবর প্রকাশিত হয়েছে, তিন বছরে পেয়াজ উৎপাদনে স্বয়ংসম্পন্ন হবে বাংলাদেশ। আমরা কোন কিছুতেই কারো উপর নির্ভলশীল হয়ে থাকতে চাই না।

বগুড়া বিএনপি-জামায়াতকে প্রত্যাখানের আহ্‌বান জানিয়ে কেন্দ্রীয় নেতা খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, বগুড়ায় আওয়ামী লীগের পক্ষে জোয়ার উঠেছে। ভালো নেতৃত্ব আসলে এই ধারাবাহিকতা অব্যহত থাকবে।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথির আরো বক্তব্য দেন সাংগঠনিক সম্পাদক নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, স্বাস্থ্য ও সংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা, সদস্য নুরুল ইসলাম ঠান্ডু, মেরিনা জাহান, বগুড়া-১ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নান, বগুড়া-৫ আসনের সংসদ সদস্য হাবিবর রহমান। সম্মেলনের প্রথম অধিবেশনের সভাপতিত্ব করেন বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ডা. মকবুল হোসেন। সঞ্চালনা করেন এবং সাংগঠনিক রির্পোট উপস্থাপন করেন বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মজিবর রহমান মজনু।

সম্মেলনের শুরুতে বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের প্রয়াত সভাপতি আলহাজ মমতাজ উদ্দিসহ জেলা আওয়ামী লীগের মৃত্যুবরণকারী নেতাকর্মীদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

Print