জালিয়তি করে ইবি শিক্ষকের নামে বই প্রকাশ: প্রকাশকের বিরুদ্ধে মামলা

November 16, 2019 at 8:50 pm

ইবি প্রতিনিধি
চলতি বছরে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. মনজুর রহমানের নামে সৃজনী প্রকাশনী থেকে ‘দ্য গ্রেট মিথোলোজি’ নামে একটি বই প্রকাশ করা হয়। বইটির সঙ্গে উনিশশো ষাট সালে তুলি-কলম থেকে প্রকাশিত সুধাংশুরঞ্জন ঘোষের ‘গ্রীক পুরান কথা’ বইয়ের কিছু অংশের মিল রয়েছে।

বইটি কলকাতায় অনুষ্ঠিত ১ থেকে ১০ নভেম্বর বই মেলায় বিক্রিও করা হয়। এরপর বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও লেখক সমাজে ব্যাপক সমালোচিত হয়। বিষয়টি ড. মনজুর জানতে পারলে ফেসবুকে তৎক্ষনাত একটি প্রতিবাদলিপি দেন। এই বইয়ের বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না দাবি করে সৃজনী প্রকাশনীর সত্ত্বাধিকারী মশিউর রহমানের নামে বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেছেন ড. মনজুর।

শানিবার বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসকর্ণারে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সাংবাদিকদের সামনে এসব তথ্য তুলে ধরেন এ শিক্ষক। ষড়যন্ত্রমূলকভাবে অন্যের লেখা বই ওই শিক্ষকের নামে প্রকাশ করায় তিনি এ মামলা করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে অধ্যাপক ড. মনজুর রহমান বলেন, আমার নামে সম্প্রতি সৃজনী প্রকাশনী থেকে ‘দ্য গ্রেট মিথোলোজি’ বইটি প্রকাশিত হয়। যার লেখক আমি নই। এই বিষয়ে আমি তাদের কাছে কোন পান্ডুলিপি জমা দেয়নি। আমার নাম ব্যবহার করে প্রকাশক ষড়যন্ত্রমূলকভাবে এ বই প্রকাশ করেছে।

তিনি আরো বলেন, চলতি মাসে কলকতায় বই মেলায় এই বইটি প্রকাশিত হওয়ার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ও লেখক সমাজে আমার বিষয়ে দেশে-বিদেশে সমালোচনা শুরু হয়। পরবর্তীতে আমি গত ১৪ নভেম্বর সৃজনী প্রকাশনীর সত্ত্বাধিকারী মশিউর রহমানের নামে ঝিনাইদহ সদরের বিজ্ঞ সহকারী জজ আদালতে আইন ও ইক্যুইটি মতে মামলা করেছি। একইসঙ্গে প্রকাশনী হতে প্রকাশিত সকল বই পুড়িয়ে দেওয়ার জন্য তাদেরকে জানিয়েছি। প্রকাশক ষড়যন্ত্রমূলকভাবে তাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য এ কাজ করেছেন বলে মামলার এজহারে ড. মনজুর রহমান উল্লেখ করেন।

এ বিষয়ে সৃজনী প্রকাশনীর সত্ত্বাধিকারী মশিউর রহমান বলেন, বইটি প্রকাশের সময় আমি ইন্ডিয়ায় অবস্থান করায় লেখকের নামের বিষয়টি ভূল বসত হয়েছে। যে কোন কারণে বইটি অন্য একটি বইয়ের সঙ্গে মিলে গেছে। বইটি বাজারে যাচ্ছে না। আমি ইন্ডিয়া থেকে আসার পরে বইটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

স/অ

Print