মেধাবী ছাত্র সজলের বাঁচার আকুতি

November 13, 2019 at 10:58 am

বাঘা প্রতিনিধি:
রাজশাহী কলেজের মেধাবী ছাত্র সজল আহাম্মদ জটিল রোগে আক্রান্ত হয়ে বাঁচার আকুতি জানিয়েছেন। তিনি দীর্ঘদিন থেকে হিফ জয়েন্ট রোগে ভুগছেন। সজল আহাম্মদ বাঘা উপজেলার আড়ানী পৌরসভার কুশাবাড়িয়া গ্রামের মজিবুর রহমানের ছেলে।

জানা যায়, সজল আহাম্মদ ২০১২-১৩ শিক্ষা বর্ষের রাজশাহী কলেজের সমাজকর্ম বিভাগের ছাত্র। তিনি এ কলেজ থেকে অনার্সে প্রথম শ্রেনিতে চতুর্থ এবং ২০১৬-১৭ শিক্ষা বর্ষে মাস্টার্সে প্রথম শ্রেনিত প্রথম স্থান অর্জন করেন। ভাগ্যের কি পরিহাস মাস্টার্সের ফলাফল প্রকাশ হওয়ার দুইদিন পর ধরা পড়ে তার জটিল রোগ হয়েছে। তারপর রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালের ডাঃ হাসান তারিখ, ডাঃ জহিরুল হক, ডাঃ সুব্রত প্রামানিক, ডাঃ কামরুজ্জামান পারভেজের কাছে চিকিৎসা গ্রহণ করেন। তারা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জাানান, হিফ জয়েন্টের দুটি বলই ড্যামেজ হয়েছে।

তাদের পরামর্শে ইন্ডিয়ার কলকাতার ৯৯ সরত বোস রোড়ের রাম কৃজ্ঞ মিশন সেবা প্রতিষ্টানে চিকিৎসা নিতে যায়। বর্তমানে সে উঠে দাড়াতে পারেনা। অন্যের সহযোগিতা নিয়ে চলতে হচ্ছে। সেখানকার ডাঃ বিএম পাল, ডাঃ পি পাল, ডাঃ জে ঘোষ, ডাঃ জি বসু একটি বোর্ড গঠন করেন। সেই বোর্ডের সিদ্ধান্ত দেন তিনি হিফ জয়েন্টের সমস্যা হয়েছে। সেটা অপারেশন করলে ভালো হয়ে যাবে। কিন্তু অপারেশনসহ তার চিকিৎসার জন্য সাড়ে ৯ লক্ষ টাকার প্রয়োজন। কিন্তু এ অর্থ ব্যয় করার সামর্থ্য তার পরিবারের নেই। কি করে ছেলেকে বাঁচাবে এ নিয়ে চরম শংকা আর উৎকণ্ঠায় আছেন সজল আহাম্মদের মা-বাবা। ফলে নিরুপায় হয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীসহ দেশের হৃদয়বান ও বিত্তবান মানুষের কাছে সাহায্যের প্রার্থনা করেছেন।

এ বিষয়ে সজল আহাম্মদের মা চম্পা বেগম জানান, আমার একমাত্র ছেলে সজল। সে অনেক মেধাবী। বর্তমানে থাকার জন্য পোণে দুই শতাংশ জমির উপর একটি টিনের ছাপরা ঘর ছিল। এই ঘরের টিন বিক্রি করে ছেলের চিকিৎসা করিয়েছি। এখন এই জমির উপর কয়েকটি সিমেন্টের খুটি ছাড়া কিছুই নেই। এখন আমার কিছুই নেই। অন্যের বাড়িতে থাকি।

এরমধ্যেই ছেলের জন্য ঢাকায় একটি গার্মেন্টসে চাকরি নিয়েছিলাম। কিছু দিন চাকরি করার পর আমি নিজেও অসুস্থ হয়ে চলে এসেিেছ। ছেলের বাবা মজিবুর রহমান টঙ্গীর গাজিপুর এলিগ্যান্স বিসিক ৪০ গার্মেন্টসে ৮ হাজার টাকা বেতনে সিকিউরিটি গার্ডের চাকরি করছে। এ টাকা দিয়ে সংসার ও ছেলের চিকিৎসা করাবো কিভাবে? অভাবের সংসারে নুন আনতে পান্তা ফুরায়। এখন ছেলেকে নিয়ে বড় বেকায়দায় রয়েছি। সাহায্য

পাঠানোর ঠিকানা-সজল আহাম্মদ, বিকাস নম্বর ০১৭৭৩-৮৪১৫৫০ (ব্যক্তিগত)। এছাড়া সজল আহাম্মদ, ইসলামী ব্যাংক লি. রাজশাহী শাখার হিসাব নম্বর ০০৭১৩৪০০৫৭৭৮৫।

Print