আবরার হত্যাকাণ্ড: রাজশাহীতে সামাজিক গণমাধ্যমে প্রতিবাদের ঝড়

নিজস্ব প্রতিবেদক:

রোববার দিবাগত রাত তিনটার দিকে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের শেরেবাংলা হলে পিটিয়ে হত্যা করা হয় তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের (১৭তম ব্যাচ) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে । তার হত্যাকাণ্ডের ঘটনা মুহুর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। প্রকাশ হয় সিসিটিভি ফুটেজও। আববার ফাহাদ এর উপর হামলাকারী সবাই ছাত্রলীগ কর্মী বলে জানা যায়। এ হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত রাজশাহীর দুই ছাত্রলীগ কর্মী রয়েছেন।

আববার ফাহাদের হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ছড়িয়ে পড়ার পর নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে সামাজিক গণমাধ্যমে। হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত ছাত্রলীগ কর্মীদের দ্রুত গ্রেফতার ও বিচার দাবি করেছেন তারা। অনেকে প্রতিবাদ হিসেবে আববার ফাহাদের নিথর দেহ তাদের নিজস্ব  টাইমলাইনে শেয়ার করছেন।

Saidur Rahman নামক একজন তার টাইমলাইনে লিখেন: “ওরা তো শুধু আবরারকে হত্যা করেনি,হত্যা করেছে প্রতিবাদী তারুণ্য,সত্য উচ্চারণ ও দেশপ্রেমকে! শহীদ আবরারের পিতাকে বলছি,অমর সন্তানের বাবা আপনি, আপনার সাথে আমরা একাত্ম; সন্তান হারানোর বেদনায় ভারাক্রান্ত!”
Tanvir Rahman Khän লিখেন: “আমরা এমন দেশে বাস করি যেখানে সম্রাটের মতন ব্যক্তি কারো আশ্রয়ে বেঁচে থাকে আর আবরার মতো দেশ প্রেমী সন্দেহবশত হয়ে মৃত্যু গ্রহণ করে! এমন দেশ করার জন্যে কি দেশ স্বাধীন হয়েছিল না দাদা রা এই দিনের জন্যে স্বাধীনতায় সহয়তা করেছিল?
#আবরার দেশ প্রেম ঈমানের অঙ্গ। আল্লাহ আপনাকে জান্নাতবাসী করুক!😞”

 

আরও পড়ুন:
আবরার হত্যা নিয়ে ভারতীয় তরুণীর যে স্ট্যাটাস ভাইরাল

Nahid Al Nomanলিখেন: “বাংলাদেশ একটি গণতান্ত্রিক দেশ।👣 এই দেশে “গণতন্ত্রের” শব্দের অর্থ কি কেউ যানেন? যারা এই দেশটি পরিচালনা করছেন তারা কি গণতন্ত্রে বোঝেন?১৯৫২,১৯৭১ সালে কি ছাত্র রাজনীতি ছিলো না? তখন তো কোনো ছাত্র এভাবে মারা যাইনি তাহলে এখন কেনো এমন হচ্ছে? ক্ষমা করে দিস ভাই আমাদের আমরা তোর জন্যে কিছুই করতে পারিনাই। এই সমস্ত জঘন্য ছাত্র রাজনীতি বাতিল করা হোক।#WeWantJustice
#JusticeForBangladesh
Ashis Kumar Deyলিখেন: বুয়েট ছাত্র আবরারের খুনিদের একটাই পরিচয় তারা নরপিশাচ, বর্বর। রাজনীতির তকমা না লাগিয়ে ঘাতকদের ফাঁসির দাবিতে সবাই সোচ্চার হোন।
Kamrul Islamলিখেন: আমার কুষ্টিয়ার মেধাবী সন্তান,আবরার ফাহাদ।ছেলেটিকে শেষমেশ পিটিয়ে মেরেই ফেলা হলো!আমি বিশ্বজিৎ কে মেরে ফেলার দৃশ্য দেখেছি। মেধাবী ছাত্র ত্বকীকে যারা হত্যা করেছে, তাদের পরিচয় সারাদেশের মানুষ জানে। তনুকে যারা ধর্ষণ করে খুন করলো, তারাও আমাদের অনেকটাই চেনা। আর কোনো হত্যার বিচার চাই না আমি!চোখ বুজলে কোনো না কোনো খুনির মুখ আমি দেখি! আমার দেশ কেন এমন হলো! আমরা যে ট্রমাটিক হয়ে যাচ্ছি ক্রমশ! যেটুকু বলা যায়, আপনাকেই, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী! চারদিকে আর কেউই নেই! এরকম আতঙ্কের মধ্যে থাকলে যে আমরা সকলেই একদিন পাগল হয়ে যাব! মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনি আরো কঠোর হউন, কারণ বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার দায়িত্ব যে আপনার ওপর পড়েছে! আমরা আপনার সাথে সর্বাত্মকভাবে আছি! আপনার জিরো টলারেন্স আরো শাণিত হোক! অনেক রক্তের বিনিময়ে অর্জিত এই দেশে কোনো ধর্ষক, খুনি, দুর্নীতিবাজ,ব্যাংক-ডাকাতদের আর আমরা দেখতে চাই না!
সৈয়দ আহসান কবীর লিখেন : একটি নৃশংস হত্যাকাণ্ড কখনোই ‘অনাকাঙ্ক্ষিত’ হতে পারে না।
Md Shoab Azad লিখেন: আশলে দেশ বা দেশিয় রাজনৈতিক অবস্থা এতো বেশী নোংরা হয়ে গেছে যে এক সময় নিজে প্রিয় ছাত্রলীগ সংগঠনের একজন ছিলাম এইটা মনে পরলেও লজ্জা বোধ হচ্ছে আজকাল.!😑

যাস্ট একটা কথাই বলবো অন্যায় কে অন্যায় বলতে শিখুন সবাই…!😐আর হ্যা অপরাধী/খুনির কোনো দল থাকতে পারে না তার এক্টাই পরিচয় সে অপরাধী.!😐 সো অতি শিগ্রই আবরার হত্যার সর্বোচ্চ বিচার দ্বাবী করছি.!

প্রসংগত: সোমবার রাতে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের শেরেবাংলা হলে এক ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় এখনো পর্যন্ত ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এর মধ্যে বেশিরভাগই বুয়েটে ছাত্রলীগের নেতা।এর মধ্যে রাজশাহীর দুইজন রয়েছেন।