নওগাঁয় গৃহবধুকে কুপিয়ে হত্যা: ডাকাতির উদ্দেশ্যে হতে পারে বলছে পুলিশ

September 11, 2019 at 5:41 pm
নিজস্ব প্রতিবেদক, নওগাঁ: নওগাঁ শহরে প্রকাশ্য দিবালোকে এক গৃহবধুকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। পুলিশ বলছে, ডাকাতির উদ্দেশ্যে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। এটা প্রাথমিকভাবে ধারণা পুলিশের। শহরের পার-নওগাঁ ধোপাপাড়া পারাপার ঘাট সংলগ্ন মহল্লায় এই নৃশংস হত্যাকান্ডের ঘটনাটি ঘটেছে।
পুলিশ এবং স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ওই মহল্লায় নিজ বাড়িতে দীর্ঘদিন ধরে সিলভার ব্যবসাযী ইসরাইল তাঁর স্ত্রী মোছা. ফাহিমা বেগমকে নিয়ে বসবাস করে আসছিলেন। তাঁদের কোনো সন্তান ছিল না। কাজেই ইসরাইল ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে চলে গেলে স্ত্রী একাই বাড়িতে থাকেন। দিনের একটি নির্দিষ্ট সময় কাজের মেয়ে তার সাথে থাকে।
বুধবার স্বামী ইসরাইল সকাল আনুমানিক ৯টার দিকে যথারীতি শহরের পুরাতন সোনালী ব্যাংক এলাকায় অবস্থিত তাঁর সিলভারের দোকানে চলে যান। বেলা প্রায় সাড়ে ১১টার দিকে কাজের মেয়ে ওই বাসায় এসে ফাহিমা বেগমকে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে চিৎকার করতে থাকে। তার মাথায় ধারালো কোন অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা ছুটে আসেন। সংবাদ পেয়ে স্বামী ইসরাইলও আসেন। সাথে সাথে তাকে নওগাঁ সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
ধারণা করা হচ্ছে সকাল ১০টা থেকে ১১টার মধ্যে হত্যাকাণ্ডের এই ঘটনাটি সংঘটিত হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নওগাঁ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।
সংবাদ পেয়ে নওগাঁ’র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার লিমন রায় এবং সদর থানার অফিসার্স ইনচার্জ সোহরাওয়ার্দি হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। বিকাল সাড়ে ৩টায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার লিমন রায় বলেছেন এখনও তদন্ত চলছে। প্রাথমিকভাবে ডাকাতির ঘটনা বলে মনে হচ্ছে। এখন খদিয়ে দেখা হচ্ছে।
স/শা
Print