জয়পুরহাট পুলিশ সুপারের অসৌজন্যমূলক আচরণ: সাংবাদিকদের সংবাদ বর্জন

September 3, 2019 at 7:10 pm

জয়পুরহাট প্রতিনিধি:
জয়পুরহাট প্রেসক্লাবের সিনিয়র সাংবাদিকদের সাথে চরম অসৌজন্যমূলক আচরণের প্রতিবাদে জেলা পুলিশের সংবাদ বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন সাংবাদিকরা। সোমবার রাতে জয়পুরহাট প্রেসক্লাবে আয়োজিত জরুরী প্রতিবাদ সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয় জয়পুরহাট প্রেসক্লাবের সাংবাদিকরা।

সভায় পুলিশ সুপারের অনাকাঙ্খিত দূর্ব্যবহারের তীব্র নিন্দা এবং ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়। সেই সাথে দু:খজনক এ ঘটনার সম্মানজনক সমঝোতা না হলে আগামী রবিবার শহরে জেলার সকল সাংবাদিকদের নিয়ে মানববন্ধন ও সমাবেশ কর্মসূচী পালনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

জয়পুরহাট প্রেসক্লাবের সভাপতি দেশ টেলিভিশন ও দৈনিক করতোয়ার প্রতিনিধি মোস্তাকিম ফাররোখের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি বাংলাভিশন প্রতিনিধি আবু বকর সিদ্দিক, সাধারন সম্পাদক রতন কুমার খাঁ, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক দৈনিক যায়যায়দিন প্রতিনিধি মাসুদ রানা, কোষাধক্ষ্য মাশরেকুল আলম, মায়ের আঁচল পত্রিকার সম্পাদক ও ভোরের কাগজের ষ্টাফ রিপোর্টার নৃপেন্দ্রনাথ মন্ডল, সংবাদের নন্দকিশোর আগরওয়ালা, জনকন্ঠের তপন কুমার খা, এনটিভিও যুগান্তরের শাহজাহান সিরাজ মিঠু, নিউজ ২৪ ও কালের কন্ঠের আলমগীর চৌধুরী, যমুনা টেলিভিশনের আবদুল আলিম, ইনকিলাবের আবু মুসা, জিটিভির খ,ম,আব্দুর রহমান রনি, সময় টেলিভিশন ও আমাদের সময়ের শাহিদুল ইসলাম সবুজ প্রমুখ।

সভায় জয়পুরহাটের সকল সাংবাদিকরা জেলা পুলিশের সব ধরনের সংবাদ বর্জনের সিদ্ধান্ত নেন। এছাড়া আগামী ৫ দিনের মধ্যে পুলিশ সুপার সাংবাদিকদের নিকট ক্ষমা না চাইলে আগামী রবিবার জেলার সকল সাংবাদিকদের নিয়ে মানববন্ধন কর্মসূচী এবং সাংবাদিক সমাবেশের ঘোষনা দেওয়া হয়।

প্রসঙ্গত: আসামী ধরতে গিয়ে নামের সাথে মিল থাকায় জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক জহুরুল ইসলামকে গত রবিবার বিকেলে পিটিয়ে আহত করে জয়পুরহাটের গোয়েন্দা পুলিশ। এ ঘটনায় স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীরা সোমবার গোয়েন্দা পুলিশের অফিসে বক্তব্য নিতে গেলে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সালাম কবির তাদের সাথে চরম অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন।

Print