রাজশাহীতে শিক্ষকের বুকের ওপর পা তুলে দেওয়ার অভিযোগ অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজশাহীতে এক শিক্ষকের বুকের ওপর পা তুলে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে অধ্যক্ষ জহুরুল আলম রিপনের বিরুদ্ধে। মহানগর টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ রিপন আগের কিছু ঘটনার প্রতিশোধ নিতেই এই ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে ভুক্তভোগী শিক্ষক রায়হানুল ইসলাম অভিযোগ করেন। এ ঘটনায় রোববার (১৮ আগস্ট) উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ দায়ের ও পরে কাটাখালী থানায় জিডি করেছেন শিক্ষক রায়হানুল।অভিযুক্ত অধ্যক্ষ জহুরুল আলম রিপন

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, (১৫ আগস্ট) বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে রাজশাহী নগরীর উপকণ্ঠ কাপাশিয়া এলাকার ‘মহানগর টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট ইন্সটিটিউট’ এর ভেতরে বঙ্গবন্ধু কর্নার কক্ষে এ ঘটনা ঘটে।

রায়হানুল ইসলাম জানান, অধ্যক্ষ জহুরুল আলমের বিরুদ্ধে কলেজের এক শিক্ষিকাকে ধর্ষণ চেষ্টা ও কয়েকজন ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ রয়েছে। এ ঘটনায় বছর খানেক আগে অধ্যক্ষ রিপনের বিচার ও শাস্তির দাবিতে পুরো কলেজ এবং স্থানীয় কাউন্সিলরসহ এলাকাবাসী ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ করে মানববন্ধন ও কুশপুত্তলিকা দাহ করেছিল।

ওই সময়ে অধ্যক্ষ রিপন তার বিরুদ্ধে আনা যৌন হয়রানির অভিযোগ ও মানববন্ধনের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছিলেন। সে সংবাদ সম্মেলনের খরচ বাবদ অধ্যক্ষ ১৫ হাজার টাকা শিক্ষক রায়হানুলকে দেন। এখন রিপন সেই টাকা ৭৫ হাজার বলে দাবি করে তা ফেরত দিতে বলেন। এ নিয়ে বাদানুবাদের এক পর্যায়ে অধ্যক্ষ রিপন শিক্ষক রায়হানুলের বুকে পা তুলে দেন।  টাকা না দিলে গায়ের মাংস কেটে টাকা উসুল করা হবে বলেও হুমকি দেন অধ্যক্ষ।

অধ্যক্ষ জহুরুল আলম রিপনের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

এ বিষয়ে পবা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) জাহিদ নেওয়াজ বলেন, শিক্ষকের দেয়া অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

কাটাখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জিল্লুর রহমান বলেন, ভুক্তভোগী শিক্ষকের দেয়া সাধারণ ডায়েরিটি থানায় নথিভুক্ত করা হয়েছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

স/আ

Print