বাগমারায় শেষ সময়ে জমে উঠেছে পশুর হাট

August 9, 2019 at 8:59 pm

বাগমারা সংবাদদাতা:

রাজশাহীর বাগমারায় ঈদুল আযহার শেষ মুহূর্তে পশুর হাটগুলো জমে উঠেছে। পবিত্র ঈদুল আযহার মাত্র ২ দিন বাকি। দিন শেষের কারণে উপজেলার বিভিন্ন হাটগুলোতে ক্রেতা ও বিক্রেতাদের জমছে।

শুক্রবার ভবানীগঞ্জ হাট বারে গরু ও ছাগল হাটায় ছিল উপচে পড়া ভিড়। সকাল হতে সন্ধ্যা পর্যন্ত ক্রয় বিক্রয়ে খামারী ও ক্রেতারা দাম দরে ব্যস্ত সময় কাটিয়েছে। প্রতিবারের তুলনায় এবারে খাশির চেয়ে গরুর দাম বেশী হওয়ায় গরুর খামারীরা খুশি। অপরদিকে দাম কমে ছাগল খামারীরা না খোশ। খামারীরা কাঙ্খিত দাম পাওয়ার আশায় পশু নিয়ে ছুটছেন কোরবানীর পশুর হাটগুলোতে।

বালানগর গ্রামের গরুর খামারী লেদু মিঞা বলেন, আগের চেয়ে শেষ হাটে বেশী দামের আশায় গরু হাটে নিয়ে এসেছি। বাজারে তার ১টি ষাড় ১ লক্ষ টাকা দাম হয়েছে। তবে এতে তিনি গরু ছাড়বেন না তার হাকা দাম আরো ২০ হাজার তবে তিনি গরু ছাড়বেন। তিনি গত ৩ মাস আগে এ গরুটি ৭৫ হাজার টাকায় কিনে ছিলেন। এবারে ভারতীয় গরু নেই তাই আরো দাম পাবে এ আসায় সময় দেখছেন। তবে সন্ধ্যার আগে তিনি গরু বিক্রয় করবেন বলে জানান।

ছাগল খামারী মুকবুল হোসেন জানান, গত বছরের তুলনায় খাশির দাম তুলনা মূলক কম, যে খাশি ১২ হাজার টাকায় বিক্রি এবারে তার দাম ১০ হাজার টাকা। এ পর্যন্ত তার ৩টি খাশি বিক্রি হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার মোহনগঞ্জ ও কেশর হাট কোরবানীর পশুর হাট ঘুরে দেখা গেছে, গরু সর্বোচ্চ ১ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা, ছাগল (খাসি) ২০ হাজার টাকা ও ভেড়া ৭ হাজার টাকা পর্যন্ত ক্রয় বিক্রয় হয়েছে। এছাড়া ক্রেতারা সমর্থনুযায়ী আগামী রোববার এই অঞ্চলের বৃহৎ মচমইল হাটে কোরবানীর গরু, ছাগল ও ভেড়া কেনার জন্য যাবেন এমনটি প্রত্যাশায় পশুর হাট চুষে বেড়াচ্ছেন অনেকেই।

অপর দিকে, এবার কোরবানীর পশু হাটগুলোতে দেশী গরুর কদর বেড়েছে। আর এই দাম বাড়ার জন্য দেশী গরুর খামারীরা ক্রেতাদের উদ্দেশ্যে ইচ্ছে মত দাম হাকাচ্ছেন। কিন্তু ক্রেতারাও বেশ সচেতন। বিক্রেতাদের হাকা দামে ক্রেতারা সাড়া দিচ্ছেন না। সূত্র মতে প্রতিবারের চেয়ে এবারে এলাকার মুসল্লীরা খাশি ক্রয়ে বেশী ঝুঁকেছেন। ফলে গরুর মুল্য বেশী হারে চাইলে ক্রেতারা কেটে পড়ছেন।

স/অ

Print