রাজশাহীতে বিক্রি জমেছে কাঠের গুড়ি

August 8, 2019 at 1:15 pm

নিজস্ব প্রতিবেদক:

কোরবানি ঈদ সামনে রেখে মাংস কাটার কাঠের গুড়ির ব্যবসা জমে উঠেছে। যদিও আর কয়েক দিন পরই ঈদ। মানুষের চাহিদার কথা বিবেচনা করে ক্ষুদ্র্র ও মৌসুমি ব্যবসায়ীরা এসব গুড়ি বিক্রি করছেন।

এদিকে নগরীর সাহেববাজার, বিনোদপুর, কাটাখালী, শালবাগান এলাকায় এই ব্যবসা জমে উঠেছে। বিভিন্ন মাপের বিভিন্ন দামের এসব গুড়ি সাজিয়ে রাখা হয়েছে। ২৫০ থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ সাত-আটশ’ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে।

নগরীর শালবাগান এলাকায় মাংস কাটার গুড়ি কিনতে আসা সেলিম হোসেন বলেন, মাংস কাটার জন্য গুড়ি বেশ প্রয়োজনীয় জিনিস। তাই কিনতে আসলাম। গুড়ি ছাড়া তো আর মাংস কাটা সম্ভব না।

একই এলাকার গুড়ি বিক্রেতা মো. রুমন বলেন, কাঠের মধ্যে তেঁতুল গাছের কাঠ অত্যন্ত শক্ত ও মজবুত। তার কাছে সবগুলো তেতুলের গুড়ি। প্রতিবছর কোরবানির ঈদ সামনে রেখে তারা কাঠের গুঁড়ি বিক্রি করেন। তিনি আরো বলেন, এ কাঠগুলো ঠিকা ও কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। প্রতিকেজি ২০ টাকা দরে বিক্রি করা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, অন্য গাছের কাঠের তৈরি গুড়ি ছুরির আঘাত নষ্ট হয়ে যায়। ফলে কাঠ থেকে উঠে যাওয়া ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র টুকরা মাংসে লেগে যায়। এতে করে অনেক সময় মাংস পরিস্কার করতে হয়। কিন্তু তেঁতুল গাছের কাঠ শক্ত ও মজবুত হওয়ায় সাধারণত এমনটি খুব কম হয়। তাই কোরবানির পশুর মাংস কাটতে এই কাঠের খাইট্টা (গুড়ি) ক্রয় করে থাকেন ক্রেতারা। কসাইরা সারা বছরই এই কাঠের গুড়ি ব্যবহার করেন।

 

স/আ

Print