জুলাইতে রাজশাহীতে নির্যাতনের শিকার ১৯ নারী-শিশু

নিজস্ব প্রতিবেদক: জুলাই মাসে রাজশাহীতে ১৯ জন নারী ও শিশু নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। এর মধ্যে ১৩টি নারী ও ৬টি শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। জুলাই মাসের স্থানীয় ও জাতীয় সংবাদপত্রসমূহ এবং এসিডি’র নিজস্ব প্রাপ্ত তথ্যের উপর ভিত্তি করে এই জরিপ পরিচালিত হয়েছে।

বুধবার বিকালে রাজশাহীর বেসরকারি উন্নয়ন ও মানবাধিকার সংস্থা এ্যাসোসিয়েশন ফর কম্যুনিটি ডেভেলপমেন্ট (এসিডি)’র ‘রিসার্চ, ডকুমেন্টেশন এন্ড পাবলিকেশন ইউনিট’ থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জুলাই মাসে নারী ও শিশু নির্যাতনের আলোচিত ঘটনাগুলোর মধ্যে গত ২ জুলাই পুঠিয়ায় গভীর রাতে নারীকে কুপিয়ে হত্যা, ৭ জুলাই গোদাগাড়ীতে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু, ৯ জুলাই গোদাগাড়ীতে মাকে হত্যা করে মাদকাসক্ত ছেলে আটক, ১৭ জুলাই দুর্গাপুরে অন্তঃসত্ত্বা নারীকে নির্যাতন করে গর্ভপাত, ২১ জুলাই দুর্গাপুরে তিন বছরের শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা অভিযুক্ত আটক, ২৭ জুলাই নগরীতে নার্সিং কলেজের মেসে ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ এবং ৩০ জুলাই রাজশাহীতে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে নির্যাতন।

জেলায় জুলাই মাসে ১৩টি নারী নির্যাতনের মধ্যে মহানগরীর থানাগুলোতে সংঘটিত হয়েছে ৬টি এবং মহানগরীর বাইরের থানাসমূহে সংঘটিত হয়েছে ৭টি নির্যাতনের ঘটনা। এরমধ্যে বাগমারায় ১টি, পুঠিয়ায় ২টি, গোদাগাড়ীতে ২টি, পবায় ১টি এবং দুর্গাপুরে ১টি নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। এসব ঘটনার মধ্যে হত্যা ২টি, হত্যার চেষ্টা ৩টি, রহস্যজনক মৃত্যু ৩টি, আত্মহত্যা ২টি, আত্মহত্যার চেষ্টার ঘটনা ঘটে ১টি, নিঁখোজ ১টি এবং ১টি যৌন হয়রানির ঘটনা ঘটে।

জেলায় এ মাসে শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটে ৬টি। সবগুলো ঘটনায় মহানগরীর বাইরের থানাগুলোতে সংঘটিত হয়েছে। এর মধ্যে বাগমারায় ২টি, মোহনপুরে ১টি, দুর্গাপুরে ১টি এবং পুঠিয়ায় ২টি শিশু নির্যাতনের খবর পাওয়া গেছে। এসব ঘটনার মধ্যে ধর্ষণের চেষ্টা ১টি, অপহরণ ২টি, আত্মহত্যার চেষ্টা ১টি, নিঁখোজ ১টি এবং অন্যান্য ঘটনা ঘটে ১টি।

স/শা

Print