গ্রাম্য শালিশে জুতাপেটার লজ্জায় গোদাগাড়ীর সেই স্কুলছাত্রের আত্মহত্যা

May 16, 2019 at 8:44 pm

গোদাগাড়ী প্রতিনিধি:

রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে নিখোঁজের প্রায় এক দিন পর সরমংলা আমতলা এলাকায় ঝুলন্ত মরদেহ মিললো জসিম নামের ১৫ বছরের এক স্কুল ছাত্রের।

ওই স্কুল ছাত্র উপজেলার মাটিকাটা ইউনিয়নের শাহাব্দিপুর গ্রামের মজিবুরের ছেলে ও পিরিজপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্র। 

বুধবার (১৫ মে) রাত ১২ টা থেকে সে নিখোঁজের পরে বৃহস্পতিবার (১৬ মে) বেলা ১২ টার দিকে এই কিশোরকে পুকুরের উপর গলায় রশি পেঁচিয়ে গাছের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখে পুলিশে খবর দেই। তার কিছুক্ষনপর পুলিশ ঘটনা স্থলে গিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখে লাশ উদ্ধার করে।

জসিমের বড় ভাই রাসিদুল জানান, পরিবারে চার ভাই বোনের মধ্যে সব ছোট জসিম। কারো সঙ্গে তাদের কোনো বিরোধ নেই। তবে আমার ছোট ভাই গতকাল তারাবীর নামাজের সময় তার সহপাঠী বান্ধবীর সাথে দেখা করতে গেলে স্থানীয় লোকজন তাকে আটকিয়ে রেখে বাড়ী খবর দেই। পরে আমার আব্বা ওখানে গেলে কিছু ছাত্রলীগ নেতা, ইউপি সদস্যসহ স্থানীয় লোকজন গ্রাম্য শালিশের রায়ে জসিমকে তার বাবা ২০ জুতার বাড়ি মেরে বাসায় নিয়ে যাবে। তারপর বুধবার রাত ১২ টার পর থেকে তাকে আর পাওয়া যাচ্ছিল না। আত্মীয়-স্বজন ও পাড়া-প্রতিবেশী সবখানে খোঁজ করা হয়েছে।

এমনকি অন্য এলাকায় খোজ করা হয়, কিন্তু তাকে পাওয়া যায়নি। পরে আজ তার লাশ ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়।

রাজশাহীর গোদাগাড়ী থানার পুলিশ পরিদর্শক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনা স্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কিছুক্ষণের মধ্যেই রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে।

তবে আমাদের ধারনা অপমান সহ্য করতে না পেরেই আত্মহত্যা করেছে এই ছাত্রটি, এছাড়া ঘটনটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এই ব্যাপারে থানায় মামলা হবে বলেও জানান গোদাগাড়ী থানার পুলিশ পরিদর্শক জাহাঙ্গীর আলম।

স/অ

 

 

Print