প্রিয় দলের জন্য বন্ধুর ঘর পোড়ালেন সমর্থক!

November 8, 2018 at 6:07 pm

সিল্কসিটিনিউজ ডেস্ক:

কোপা লিবার্তোদোরেসের ফাইনালে এই মৌসুমে মুখোমুখি হতে যাচ্ছে আর্জেন্টাইন ফুটবলের দুই পরাশক্তি বোকা জুনিয়র্স আর রিভারপ্লেট। দক্ষিণ আমেরিকান ফুটবলের চ্যাম্পিয়নস লিগ খ্যাত এই টুর্নামেন্টের ফাইনাল উপলক্ষে আর্জেন্টাইনদের উত্তেজনা এখন তুঙ্গে। উত্তেজনার মাত্রাটা কোন পর্যায়ের, সেটাই যেন আরেকবার জানান দিলেন দুই দলের দুই সমর্থক। কোন দল ভালো, এই বিতর্কে আর্জেন্টিনার এক লোক তাঁর শ্যালকের বাড়িতে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে!

ফুটবলের চরম প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ দ্বৈরথ কোনটি? অধিকাংশ ফুটবলপ্রেমী হয়তো বলবেন রিয়াল মাদ্রিদ বনাম বার্সেলোনা ম্যাচের কথা। কেউ কেউ ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড-লিভারপুল, এসি মিলান-ইন্টার মিলান, চেলসি-আর্সেনাল, লিভারপুল-চেলসি, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড-আর্সেনাল, ইন্টার মিলান-জুভেন্টাস, রোমা-লাৎসিও এসব ম্যাচের কথাও আসতে পারে আলোচনায়। এমনকি আমাদের দেশের আবাহনীও-মোহামেডান ম্যাচেরও আগে জৌলুশ ছিল আলাদা, মানুষের মধ্যে এই দুই দল নিয়ে তর্কাতর্কিও হত প্রচণ্ড। গোটা দেশ ভাগ হয়ে যেত দুই ভাগে। তবে আর্জেন্টিনার ঘরোয়া ফুটবল যারা অনুসরণ করেন, তারা জানেন মেসিদের দেশের দুই ক্লাব বোকা জুনিয়র্স আর রিভারপ্লেটের সমর্থকদের মধ্যে যে ধরনের বিদ্বেষ কাজ করে, তেমনটা আর কোথাও তেমন দেখা যায় না। বোকা জুনিয়র্স-রিভার প্লেট ম্যাচ মানেই বাড়তি উত্তেজনা-উন্মাদনা, বোকা জুনিয়র্স-রিভার প্লেট ম্যাচ মানেই মারামারি, সংঘর্ষ— সে কারণেই এ দ্বৈরথের নাম দেওয়া হয়েছে ‘সুপার ক্লাসিকো’। আর্জেন্টাইন ঘরোয়া ফুটবল লিগের কথা বাদ দিন, এই দুই দল যখন লাতিন অঞ্চলের সর্বোচ্চ ক্লাব প্রতিযোগিতা কোপা লিবার্তোদোরেসের ফাইনালে ওঠে, তখন এই দুই দলের সমর্থকদের উত্তেজনার মাত্রাটা কেমন হতে পারে কল্পনা করতে পারছেন? বোকা জুনিয়র্স-রিভার প্লেটের মধ্যে কোন দল ভালো, এ নিয়ে তর্কে জড়িয়ে গত রোববার আর্জেন্টিনায় এক সমর্থক আরেক আরেক সমর্থকের বাড়ি পুড়িয়ে দিয়েছে!

ঘটনাটা ঘটেছে— আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েনেস এইরেসের পাশের একটা ছোট্ট গ্রাম অ্যাপোস্তোলেসে বাস করতেন আর্তুরো। সে বাড়িতে বেড়াতে আসে তাঁরই বন্ধু অস্কার। এরপর দুজন কাছেই তৃতীয় কোনো বন্ধুর বাড়িতে বেড়াতে যান। সেখানে গিয়েই সমস্যাটা দানা বাঁধে। কোপা লিবার্তোদোরেসের প্রসঙ্গ ওঠে। রিভারপ্লেট না বোকা জুনিয়র্স—দুই ক্লাবের মধ্যে কে ভালো, কার ইতিহাস কতটা সমৃদ্ধ এ নিয়ে তর্ক বেঁধে যায় আর্তুরো আর অস্কারের মধ্যে। তর্কাতর্কি এমন পর্যায়ে চলে যায়, যে আর্তুরোর বাড়িতে থাকবেন না—এমন সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন অস্কার। কিন্তু তাঁর মালপত্র তো আর্তুরোর বাড়িতে। তৃতীয় বন্ধুর বাড়ি থেকে বেরিয়ে সে চলে যায় মালপত্র নিয়ে আসতে। এরই মধ্যে আর্তুরো নিজের বাড়ির দিকে রওনা দেন। কিন্তু তিনি তখন ঘুণাক্ষরেও টের পাননি, কী ভীষণ সর্বনাশ হতে চলেছে তাঁর। বাড়ির কাছে পৌঁছে দেখেন গোটা বাড়ি দাউ দাউ করে জ্বলছে। প্রতিবেশীরা জানায়, তাঁর বন্ধু অস্কার মালপত্র নেওয়ার নাম করে বাড়িতে আগুন লাগিয়ে পালিয়েছে। পলাতক অস্কারকে খুঁজতে এখন অভিযান শুরু করেছে স্থানীয় পুলিশ। কিন্তু সর্বনাশ যা হওয়ার তো হয়েই গেছে। একটা সামান্য ফুটবল ম্যাচ একটি বিশেষ দলকে সমর্থন করার খেসারত দিলেন এই আর্তুরো।
আগামী ১১ তারিখে বোকা জুনিয়র্সের মাঠ লা বোম্বানেরায় কোপা লিবার্তোদোরেসের ফাইনালের প্রথম লেগ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। দ্বিতীয় লেগ হবে ২৫ তারিখে, রিভার প্লেটের মাঠ লা মনুমেন্টালে। এই ম্যাচ দেখতে মাঠে থাকবেন স্বয়ং রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। ম্যাচের গুরুত্বটা বুঝতে পারছেন তো? সেদিন আবার অঘটন কী ঘটে, এই শঙ্কাটা কিন্তু থেকেই যাচ্ছে।

Print