বাগমারায় নিখোঁজ আ’লীগ নেতাকে ফিরে পেতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

October 15, 2018 at 8:32 pm

বাগমারা প্রতিনিধি:

রাজশাহীর বাগমারায় আওয়ামী লীগ নেতা ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আব্দুস সালাম নিখোঁজের ঘটনায় তাকে অক্ষত অবস্থায় ফিরে পেতে মানববন্ধন এবং বিক্ষোভ মিছিল করেছে তার পরিবারের লোকজনসহ এলাকাবাসী। নিখোঁজের ২৪ ঘন্টা পরও তার কোন সন্ধান করতে পারেনি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে চেউখালী কদম তলার মোড় এলাকায় প্রায় দুই হাজার লোকজন এ মানববন্ধন করে।

মানববন্ধন শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে তারা। মানববন্ধনে বক্তব্য দেন নিখোঁজ আব্দুস সালামের স্ত্রী আফরোজা বেগম, মেয়ে শাপলা খাতুন, ইউনিয়ন আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাহিদুল ইসলাম, আ’লীগ নেতা মাস্টার বকুল খরাদী, উপজেলা মহিলা লীগের সভাপতি মরিয়ম বেগম, মাস্টার রফিকুল ইসলাম, ছাত্রলীগ নেতা আতাউর রহমান, সোহেলা রানা প্রমুখ।

নিখোঁজ সালামের স্ত্রী আফরোজা বেগম জানান, রোববার সকালে ভবানীগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের উদ্দেশে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায় সালাম। সেখানে কাজ শেষ করে দুপুর ১২টার পর পর বাড়ি ফেরার পথে পলাশী নামক স্থানে এলে তার মোটরসাইকেলের গতি রোধ করে সাদা টি শার্ট পরিহিত দুজন ব্যক্তি। তারা সেখানে আগে থেকে একটি কালো মাইক্রোবাস নিয়ে অবস্থান করছিল বলে এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, নিখোঁজ আব্দুস সালামকে দ্রুত ফিরে পাওয়া না গেলে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। তারা আরো বলেন, আব্দুস সালাম যদি অপরাধী হয়ে থাকে তাহলে তার বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে যাওয়া হলো না কেন? কাপুরুষের মতো গোপনে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া হলো কেন? আব্দুস সালাম যদি আইনের চোখে অপরাধী হয়ে থাকে তাহলে আদালতের নিকট সোপর্দ করে আইনের মাধ্যমেই তার বিচার করা হক। আব্দুস সালামকে দ্রুত খুঁজে বের করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানান তারা।

নিখোঁজ আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুস সালাম উপজেলার গোয়ালকান্দি ইউনিয়নের চেউখালি গ্রামের মৃত আব্দুস সোবহান প্রামানিকের ছেলে। আব্দুস সালাম বাগমারা উপজেলা আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক এবং গোয়ালকান্দি ইউনিয়ন আ’লীগের সহ-সভাপতি। গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তিনি চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেছিলেন। এছাড়াও আব্দুস সালাম একজন পল্ট্রি ব্যবসায়ী ।

আব্দুস সালাম নিখোঁজের ঘটনায় তার স্ত্রী আফরোজা বেগম রাতে বাগমারা থানায় একটি সাধারণ ডায়রী করেছেন। ঘটনাটি জানার পর থেকে পুলিশ নিখোঁজ সালামের অবস্থান জানতে তদন্ত শুরু করেছে। কী কারণে তিনি নিখোঁজ হলেন তা জানা সম্ভব হয়নি। তবে এরই মধ্যে সব থানায় রিপোর্ট পাঠানো হয়েছে এবং তার ব্যবহৃত মোবাইল নম্বরটি ট্র্যাকিং করা হচ্ছে। তথ্য পাওয়া মাত্রই তাকে উদ্ধার করা সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ নাছিম আহম্মেদ।

স/শা

Print