রাজশাহীতে টেলিনর ইয়ুথ ফোরাম সমাবেশ অনুষ্ঠিত

July 18, 2018 at 10:02 pm

নিজস্ব প্রতিবেদক:

সমাজের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে প্রযুক্তিকে কাজে লাগানো যায় অভিনব উপায়ে। তরুণদের নতুন নতুন চিন্তা এভাবেই সমাজের নানা অসমতা সমাধানে শক্তিশালী ভুমিকা রাখবে বলেই মনে করেন টেলিনর ইয়ুথ ফোরাম আযোজকরা। আর সেই উদ্দেশ্যে আজ রাজশাহীর তরুণদের অনুপ্রাণিত করতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি আলোচনা সভার আয়োজন করে গ্রামীণফোন।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চেয়ারম্যান ড বিমল কুমার প্রামাণিক, সহযোগী অধ্যাপক ড মোঃ ইকবাল আজিজ খান, গ্রামীণফোনের রাজশাহী সার্কেল এইচ আর হেড মোঃ শহিদুল হক, সার্কেল মার্কেটিং হেড মোঃ সোহেল মাহমুদ, সার্কেল রিটেইল হেড মোঃ হাসান মাহমুদ সহ উভয় প্রতিষ্ঠানের অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ।

অনুষ্ঠানে বলা হয়, টেলিনর ইয়ুথ ফোরাম এমন একটি প্ল্যাটফর্ম যেখানে তরুণরা তাদের আইডিয়াগুলো জমা দিয়ে সাফল্যের দিকে এগিয়ে যেতে পারে। তরুণদের ক্ষমতায়নে বিগত পাঁচ বছরের ধারাবাহিকতায় ষষ্ঠবারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে টেলিনর ইয়ুথ ফোরাম ২০১৮। টিওয়াইএফ ২০১৮- এর জন্য আবেদনপত্র গ্রহণ চলছে। সামাজিক অসমতা সমাধানে প্রযুক্তির ব্যবহার- এ বিষয়ক যে কোন আইডিয়া যে কোন তরুণ আগামী ৩১ জুলাই ২০১৮- এর মধ্যে https://www.telenor.com/youthforum/apply-for-tyf-2018/ লিঙ্কে জমা দিতে পারবেন।

২০ থেকে ২৮ বছর বয়সী যে কোন তরুণ, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী, শিক্ষক, পেশাজীবি, উদ্যোক্তা এবং উদ্ভাবকরা আগামী আট থেকে দশ ডিসেম্বর নরওয়ের অসলোতে অনুষ্ঠিতব্য টিওয়াইএফ ২০১৮- এ আবেদনের জন্য যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন। আবেদনকারীদের মধ্য থেকে বিভিন্ন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে চূড়ান্ত পর্বের জন্য বাংলাদেশ থেকে দুই জনকে বাছাই করা হবে। বাংলাদেশ থেকে নির্বাচিত প্রতিনিধিরা অসলো এবং ব্যাংককের অনুষ্ঠানসহ বছরজুড়েই তাদের জন্য নির্ধারিত দলের সাথে কাজ করার সুযোগ পাবে।

সংবাদ সম্মেলনে গ্রামীণফোনের শহিদুল হক বলেন, “তরুণরাই বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শক্তি আর তাদের পক্ষেই সম্ভব সামাজিক নানা প্রতিকূলতা দূরীকরণে আগ্রণী ভূমিকা পালনের। আমাদের দেশের তরুণরা ইতোমধ্যেই নানা খাতে ভূমিকা রেখে বিশ্বমঞ্চে বাংলাদেশের নাম উজ্জ্বল করেছে। টেলিনর ইয়ুথ ফোরামের সর্বশেষ পাঁচ সংস্করণেও বাংলাদেশের প্রতিনিধিরা ডিজিটাল প্রযুক্তির মাধ্যমে সামাজিক সমস্যার সমধানে লক্ষ্য অর্জনে বড় ভূমিকা রেখেছ। আমাদের বিশ্বাস, এবারেও তার ব্যাত্যয় হবে না”।

টি ওয়াই এফ একটি বৈশ্বিক প্ল্যাটফর্ম, যৌথভাবে যার ডিজাইন ও পৃষ্ঠপোষকতায় রয়েছে টেলিনর গ্রুপ এবং নোবেল পিস সেন্টার (এনপিসি)। এ বছর ফোরামের প্রতিপাদ্য নির্ধারিত হয়েছে ‘ব্রাইট মাইন্ডস, রিডিউসিং ইনইকুয়ালিটিস’।

এবারের টি ওয়াই এফ- এ বাংলাদেশ, ডেনমার্ক, মালয়েশিয়া, মিয়ানমার, নরওয়ে, পাকিস্তান, সুইডেন ও থাইল্যান্ডের প্রতিনিধিরা আগামী ৮ থেকে ১১ ডিসেম্বর নরওয়ের রাজধানী অসলোতে অনুষ্ঠিতব্য বিশেষ অনুষ্ঠানে অংশ নেবে। আর বিশ্বমঞ্চে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করার জন্য রাজশাহী থেকে মেধাবী তরুণদের খুঁজে পেতেই রাজশাহীতে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

স/অ

Print