নাজুক দেশের সূচকে বাংলাদেশের উন্নতি

July 10, 2016 at 8:21 pm

সিল্কসিটিনিউজ ডেস্ক:

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বেসরকারি গবেষণা ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দ্য ফান্ড ফর পিস-এর বিশ্বের ‘নাজুক দেশের তালিকায়’ উন্নতি হয়েছে বাংলাদেশের।

 

গত বছরের তালিকা সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৩২ নম্বরে, এবার ৩৬ নম্বরে। এর মাধ্যমে বাংলাদেশে স্থিতিশীলতা বৃদ্ধির বিষয়টি উঠে এসেছে।

 

১৭৮টি দেশ নিয়ে সংস্থার করা এই তালিকায় দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে ভারত, শ্রীলঙ্কা, ভুটান ও আফগানিস্তানের উন্নতি হয়েছে। অবনতি হয়েছে পাকিস্তান, মিয়ানমার ও নেপালের। আর মালদ্বীপের অবস্থান অপরিবর্তিত রয়েছে।

 

সংস্থার এবারের তালিকায় সবচেয়ে নাজুক দেশ সোমালিয়া। গতবার তারা ছিল দ্বিতীয় স্থানে। আর সবচেয়ে ‘টেকসই দেশ’ এবারও ফিনল্যান্ড।

 

২০১৫ সালের নাজুক দেশের তালিকার এক নম্বরে থাকা সাউথ সুদান এবারের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। নতুন তালিকায় সিরিয়ার অবস্থান ৬ নম্বরে; গতবার ছিল ৯ নম্বরে।

 

নতুন তালিকায় আফগানিস্তানের অবস্থান ৯ নম্বরে; গতবার ছিল ৮ নম্বরে। পাকিস্তানের অবস্থান ছিল ১৪ নম্বরে; এবার তাদের অবস্থান ১৩। গতবার মিয়ানমার ছিল ২৭ নম্বরে; এবার ২৬ নম্বরে। নেপালের এবারের অবস্থান ৩৩; গতবার ছিল ৩৬ নম্বরে।

 

তালিকায় বাংলাদেশের প্রতিবেশী দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে ভালো করেছে শ্রীলঙ্কা। গতবার তাদের অবস্থান ছিল ৩৪ নম্বরে; এবার ৪৩ নম্বরে।

 

এ তালিকায় ভারতের অবস্থান ৭০ নম্বরে; গতবার ছিল ৬৮ নম্বরে। ভুটানের অবস্থান ৭৮ নম্বরে; গতবার ছিল ৭৪ নম্বরে। আর গতবারের মতো এবারও মালদ্বীপের অবস্থান ৯১ নম্বরে।

 

প্রতিবেদনে ২০১১ সাল থেকে সিরিয়ার গৃহযুদ্ধের প্রভাব মধ্যপ্রাচ্যে সীমাবদ্ধ থাকার কথা উল্লেখ করে বলা হয়, ২০১৫ সালে সেই প্রভাব ইউরোপে ছড়িয়েছে ১০ লাখের বেশি আশ্রয়প্রার্থী যাওয়ার মাধ্যমে। তাদের জন্য ইউরোপে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। অনেক দেশ আগের ভালো অবস্থান হারিয়েছে।

 

যুদ্ধ, শান্তি চুক্তি, প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও রাজনৈতিক আন্দোলন কীভাবে কোনো দেশকে অস্থিতিশীলতার দিকে বা ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যায় তা বিশ্লেষণে ১২ বছর ধরে সামাজিক, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিকসহ ১২টি সূচকের ভিত্তিতে এই তালিকা করে আসছে ওয়াশিংটনভিত্তিক সংস্থাটি। এতে সবচেয়ে নাজুক দেশের নাম রাখা হয় সবার ওপরে।

সূত্র: রাইজিংবিডি

Print