গোদাগাড়ীতে মাঠে নেই বিএনপি- জনসভার প্রস্তুতি আ’লীগের

February 10, 2018 at 10:31 pm

গোদাগাড়ী প্রতিনিধিঃ

গত বৃহস্পতিবার ৮ ফেব্রুয়ারী বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার রায়ে ৫ বছরের কারাদন্ডের প্রতিবাদে বিএনপি সরাদেশে দুইদিন ব্যাপি জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে আন্দোলনের ঘোষণা দিলেও গোদাগাড়ীতে মাঠে নেই বিএনপি।  শনিবারও কোন নেতাকর্মীকে দলীয় অফিস ও রাজপথে দেখা যায়নি।

রায়ের দিন বৃহস্পাতিবার কোন নেতাকেউ দলীয় অফিসে বা কোথাও দেখা যাইনি। আর রায় ঘোষণা দেওয়ার পরও কেন্দ্রীয় বিএনপি জেলা ও উপজেলায় বিভিন্ন কর্মসূচি পালনের নির্দেশ দিলেন একসময়ের বিএনপির শক্তিশালীঘাটি হিসেবে পরিচিত ও সাবেক প্রভাবশালী মন্ত্রী ব্যারিষ্টার আমিনুল হকের নিজ এলাকায় কোন কর্মসূচি পালন করতে দেখা যাচ্ছে না। এই নিয়ে নির্বাচনি এলাকায় বিএনপি নেতা ও সাধারণ মানুষের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

অপরদিকে গত ৮ ফেব্রুয়ারী খালেদা জিয়ার রায়েরদিন পুরো রাজনীতির মাঠে ছিলো আওয়ামীলীগের দখলে। সকাল ১০ টায় যুবলীগ ও ছাত্রলীগ মিছিল করে পরে দুুপুরে শেখ হাসিনার আগমন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভাশেষে খালেদা জিয়ার রায় ঘোষণার পর আনন্দ মিছিল করে আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতারা।

এদিকে, আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারী গোদাগাড়ীতে আওয়ামীলীগের বিশাল সমাবেশ কে কেন্দ্র করে  দুইদিন হতে ব্যস্ত সময় পার করেছন সাবেক শিল্প প্রতিমন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরী। এছাড়াও আগামী ২২ ফেব্রুয়ারী রাজশাহীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশাল জনসভাকে সাফল্য মন্ডিত করতে নেতাকর্মীদের সাথে মিটিং ও নির্দেশনা প্রদান করে যাচ্ছেন।

আজ শনিবার সকাল ১১ টায় আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারী গোদাগাড়ী মহিলা ডিগ্রী কলেজ মাঠে জনসভার মাঠ পরিদর্শনে আসে ওমর ফারুক চৌধুরী। তিনি মাঠে এসে সরেজমিন দেখে মঞ্চ ও দলীয় নেতাদের মিটিং করার নির্দেশ প্রদান করেন।

আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারী জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন, জাতীয় চার নেতার অন্যতম সন্তান কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও স্বাস্থ্য মন্ত্রী মোঃ নাসিম। এছাড়াও আরও উপস্থিত থাকবেন কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র জাতীয় চার নেতার অন্যতম সন্তান এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, রাজশাহী জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক শিল্প প্রতিমন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরী, পররাষ্ট প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমসহ রাজশাহী ৬ টি আসনের সকল এমপি।

গোদাগাড়ী  উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ বদিউজ্জামান বলেন, শেখ হাসিনা রাজশাহী আসার আগে মোঃ নাসিমের আগমন গোদাগাড়ীতে হওয়াই আমরা অত্যন্ত খুশি। তিনি জাতীয় চার নেতার সন্তান আর আমাদের এমপি ফারুক চৌধুরী জাতীয় চার নেতার ভাগ্নে ও শহিদ পরিবারের সন্তান। এখানেই প্রমাণ হয় যে গোদাগাড়ী তানোরে অন্য কোন প্রার্থী নয় একমাত্র ফারুক চৌধুরীই যোগ্য। আগামী নির্বাচনে ফারুক চৌধুরী প্রায় নিশ্চিত প্রার্থী বলে মন্তব্য করেন।

গোদাগাড়ী পৌ আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব অয়েজ উদ্দীন বিশ্বাস বলেন, আগামী ১৪ তারিখের জনসভাতে সফল করতে আমারা মাঠে আছি। আগামী দিনে এই আসনে ফারুক চৌধুরী যোগ্য নেতৃত্ব এটাই কেন্দ্রীয় নেতাকে আমরা দেখিয়ে দেব। তিনি বলেন আগামী দিনে বিএনপির যে কোন ধরনের আন্দোলন সংগ্রাম মোকাবেলা করতে আমরা রাজপথে থেকে মোকাবেলা করব।

দুপুর ১২ টার দিকে গোদাগাড়ী মহিলা ডিগ্রী কলেজ মাঠে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ বদিউজ্জামানের নেতৃত্বে গোদাগাড়ী উপজেলা কলেজ, মাধ্যমিক, মাদ্রাসা ও প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি ও ডিপটিউবয়েল নেতাদে নিয়ে জনসভার প্রস্ততি সভা করা হয়।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ, পৌর আওয়ামীলীগ সভাপতি অয়েজ উদ্দীন বিশ্বাসসহ বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ।

স/অ

Print