সপ্তাহের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম বাড়ল ২০ টাকা

গত মাসে ভোজ্যতেলের দাম বাড়ানোর ঘোষণা দেয় বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশন। শুক্রবার নতুন দরের এই তেল রাজধানীর বাজারে আসতে শুরু করেছে। কিছু দোকানে বাড়তি নতুন দরের তেল বেচাকেনা শুরু হয়েছে।

তবে সব এলাকায় এই তেল এখনও পুরোপুরি বিক্রি শুরু হয়নি। অনেক দোকানে আগের দামে তেল বিক্রি হতে দেখা গেছে। এছড়া সপ্তাহের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম দুই দফায় কেজিতে ২০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। বেড়েছে ডিমের দামও।

নিত্যপণ্যের দাম বাড়বে এমন কোনো পদক্ষেপ প্রস্তাবিত বাজেটে নেওয়া হয়নি। এমনকি যেসব সুবিধা রয়েছে অনেক ক্ষেত্রে তা আরও সম্প্রসারণ করা হয়েছে। শুক্রবার নিত্যপণ্যের বাজারে বাজেটের কোনো প্রভাব দেখা যায়নি।

গতকাল রাজধানীর বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বেড়েছে ভোজ্যতেলের দাম। মিরপুর ১নং বাজারের বিক্রেতা নাসির উদ্দিন জানান, ৫ লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল আগে গায়ে সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য ছিল ৬৮৫ টাকা। এই তেল বিক্রি হয়েছে ৬৬৫ টাকায়। দাম বৃদ্ধির ঘোষণার পরে গায়ের দামে বিক্রি করেছেন। এখন ৫ লিটার বোতলের সয়াবিন তেলের সর্বোচ্চ খূচরা মূল্য ৭৩০ টাকা। এই তেল এখনও পুরোপুরি বিক্রি শুরু হয়নি। চলতি সপ্তাহে বাজার থেকে নতুন দরের তেল কিনতে হবে।

এ ছাড়া খোলা তেল কিনতে ক্রেতাদের বাড়তি অর্থ গুনতে হচ্ছে। খোলা সয়াবিন তেলের কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৩৫ থেকে ১৪০ টাকা। আগের সপ্তাহে ছিল ১৩০ থেকে ১৩৫ টাকা। পাম সুপার বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১২৫ টাকায়, যা আগে ১১৫ থেকে ১২০ টাকা ছিল।

সপ্তাহের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম দুই দফায় কেজিতে ২০ টাকা পর্যন্ত বেড়ে গেছে। আগের সপ্তাহে ৪৫ টাকা কেজি দেশি পেঁয়াজ এখন বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকায়। বিক্রেতারা জানান, দেশি পেঁয়াজের মোকামে দাম বেড়েছে। আমদানি পেঁয়াজ কম আসছে। এ কারণে বাজারে দাম বাড়ছে।

রসুনের দামও কিছুটা বেড়েছে। আমদানি করা রসুনের দাম বেড়ে ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। আগের সপ্তাহে ছিল ১২০ থেকে ১৩০ টাকা। বেড়েছে ডিমের দামও। প্রতি ডজন ডিম আগে ৮০ থেকে ৮৫ টাকা ছিল। গতকাল প্রতি ডজন ৯০ থেকে ৯৫ টাকায় বিক্রি হয়।

কারওয়ান বাজারের চাল বিক্রেতা মো. ইউনুস বলেন, বোরো নতুন চালের দাম স্থিতিশীল রয়েছে। তবে পুরোনো চাল শেষ হয়ে আসায় কেজিতে দু-এক টাকা বেড়েছে। এখন সরু চাল মিনিকেট ও নাজিরশাইল কেজি ৬২ থেকে ৬৬ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। মোটা চাল গুটি ও স্বর্ণা বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৫২ টাকা। তবে এই চালের দাম আগে ছিল ৪৮ থেকে ৫০ টাকা।

মোটা চালের দাম বৃদ্ধির বিষয়ে তিনি বলেন, সরকারের চাল সংগ্রহ চলছে। এ কারণে বাজারে মিলগুলো দাম বাড়িয়ে দিয়েছে।

 

সূত্রঃ সমকাল

শর্টলিংকঃ

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, silkcitynews@gmail.com ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন @silkcitynews.com আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।