শাহরুখের বিরুদ্ধে বড় ধরনের অভিযোগ আনলেন সৌরভ

নিউজ ডেস্ক

কলকাতার দাদা সৌরভ গাঙ্গুলীকে অধিনায়ক করে কলকাতা নাইট রাইডার্স দল গড়েছিলেন বলি বাদশা শাহরুখ খান।

২০০৮ সালে আইপিএলে সৌরভের নেতৃত্বে খেলা শুরু করে কেকেআর। কিন্তু বিশেষ কোনো কারণে শাহরুখের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি ঘটে সৌরভের। দলই ছেড়ে দেন সৌরভ।

কেকেআর নিয়ে সৌরভের সঙ্গে শাহরুখের মধ্যে যে একটা দূরত্ব তৈরি হয়েছিল, তা ঝুঝে গিয়েছিল ক্রিকেটপ্রেমীরা। কিন্তু তাদের মধ্যে কি এমন ঘটেছিল সে বিষয়টি রহস্যই ছিল এতোদিন।

এবার সেই রহস্য উন্মোচন করলেন সৌরভ গাঙ্গুলী নিজেই। শাহরুখের বিরুদ্ধে বড় ধরনের অভিযোগ আনলেন তিনি।

তিনি জানালেন, সে সময় প্রতিশ্রুতি দিয়েও তা রক্ষা করেননি দলের মালিক শাহরুখ খান।

সম্প্রতি সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক ও বর্তমান বিসিসিআই সভাপতি বলেন, ফ্র্যাঞ্চাইজিদের উচিত ক্রিকেটীয় বিষয়ে নাক না গলানো। যদি চেন্নাই সুপার কিংসের মতো এমন মানসিকতা সব দলে দেখতে পাওয়া কঠিন। অমি অধিনায়ক থাকার সময় নাইট রাইডার্স থেকে এমন স্বাধীনতা পাইনি।

তিনি যোগ করেন, একটা সাক্ষাৎকারে দেখেছিলাম গৌতম গম্ভীরকে শাহরুখ বলছেন, ‘এটা তোমার দল। আমি নাক গলাব না।’ এমন দাবি আমিও করেছিলাম প্রথম মৌসুমে। আমি শাহরুখকে বলেছিলাম, ব্যাপারটা আমার ওপর ছেড়ে দাও। কিন্তু তেমনটা করেননি শাখরুখ।‌

যারা ক্রিকেটারদের ওপর দল ছেড়ে দেয় তারা সাফল্য পায় বলে দাবি করেন সৌরভ।

উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, চেন্নাই সুপার কিংস দলটি ধোনি চালিয়ে থাকে। মুম্বাইয়ের কর্মকর্তারা কখনও রোহিতকে বলেন না, একে দলে নাও, ওকে বাদ দেও।

এ উদাহরণের মাধ্যমে সৌরভ বুঝিয়ে দিতে চাইলেন, কেকেআরের অধিনায়ক হলেও দলের নিয়ন্ত্রণ তার হাতে দেননি শাহরুখ। ক্রিকেটের বাইরের লোক হয়েও দল পরিচালনা শাহরুখই করেছিল। কখনোই স্বাধীনভাবে খেলার সুযোগ পাননি সৌরভ। কিন্তু চেন্নাই, মুম্বাই দলটি অধিনায়কদের ওপর দায়িত্ব ছেড়ে দেয়ায় তারা ভালো করছে।

প্রসঙ্গত, সৌরভের পরিবর্তে কেকেআরের দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল কিউই তারকা ব্রেন্ডন ম্যাককালামকে। তবে ফের অধিনায়ক হিসাবে ফিরেছিলেন সৌরভ। কিন্তু ২০১১ থেকে সৌরভকে হটিয়ে গৌতম গম্ভীরকে অধিনায়ক করা হয়।

 

সুত্রঃ যুগান্তর

শর্টলিংকঃ

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, [email protected] ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন @silkcitynews.com আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।