রাজশাহীর গ্রামের ৭৭ টাকার পেঁয়াজ, নগরীতে ১০০

নিউজ ডেস্ক


নিজস্ব প্রতিবেদক:
রাজশাহীর বানেশ্বরে গতকাল মঙ্গলবার পাইকারী দরে এক কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হয় ৭৭ টাকা দরে। কিন্তু সেই পেঁয়াজ গতকাল রাজশাহী শহরে সেঞ্চুরি করেছে। মাঝে দুদিন পেঁয়াজের দাম কমলেও গতকাল আবারও বেড়েছে। একদিনে অন্তত ২৫ টাকা কেজি বেড়েছে রাজশাহীর বাজারে পেঁয়াজের দাম। এতে করে মধ্যবিত্তরা পড়েছেন বেকায়দায়।

রাজশাহীর বানেশ্বর বাজার ঘুরে দেখা গেছে, এ বাজারে দেশি জাতের পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে প্রতি মণ ৩১০০ থেকে ৩৫০০ টাকা দরে। এ বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজ খুচরা বিক্রি হয়েছে ৮০-৮৫ টাকা দরে।

বাজারের পেঁয়াজ বিক্রেতা আকবর আলী বলেন, মাঝে দুদিন পেঁয়াজের দাম কেজিতে অন্তত ২০ টাকা কমেছিল। কিন্তু টানা দুদিন বৃষ্টির কারণে আবার পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে।

বানেশ্বর বাজারের ক্রেতা নাজিম উদ্দিন বলেন, ‘পেঁয়াজের দাম কখন বাড়ছে, কখন কমছে বলা মুশকিল। তবে ৮০-১০০ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ কেনা আমাদের মতো গরিব মানুষদের জন্য কষ্টকর। এ কারণে এখন তরকারিতে পেঁয়াজ একেবারে কম দিতে বলেছি।’

এদিকে রাজশাহী শহরে সাহেব বাজার কাঁচাবাজারে গতকাল পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে প্রতি মণ ৩৫০০ থেকে শুরু করে ৩৭০০ টাকা দরে। আবার ভারতীয় পেঁয়াজের দাম মণে একদিনে বৃদ্ধি পেয়েছে ৯০০ টাকা। আগের দিন সোমবার যেখানে প্রতি মণ ভারতীয় পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ২০৮০ টাকা দরে। গতকাল সেটি বিক্রি হয়েছে ২৯২০ টাকা দরের। খুচরা বাজারে আগের দিন যেখানে ছিলো ৫৫ টাকা কেজি, গতকাল সেটি ২৫ টাকা বেড়ে হয়েছে ৮০ টাকা। ফলে পেঁয়াজ কিনতে গিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে শহরেরর খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষকে।

সাহেব বাজারের ক্রেতা নাসিমা খাতুন বলেন, ‘পেঁয়াজ কম খাচ্ছি। তার পরেও যত টুকু প্রয়োজন হচ্ছে, ততটুকু কিনতেই হিমশিম খাচ্ছি। গরিব মানুষ ১০০ টাকা কেজি পেঁয়াজ কিনব নাকি, চাল কিনব। দিন আনি দিন খাই আমরা। এভাবে জিনিসের দাম বাড়লে কিভাবে চলবো।’

নগরীর পেঁয়াজ ব্যবসায়ী মাজদার রহমান বলেন, ‘একদিনে কেজিতে অন্তত ২৫ টাকা বেড়েছে দাম। এভাবে বাড়তে থাকলে আবারো পেঁয়াজ নিয়ে হৈ চৈ শুরু হবে। দুদিনের বৃষ্টির কারণে মাল ঢুকতে না পারায় দাম বৃদ্ধি পেয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে বাজার আবার কিছুটা কমতেও পারে।’

স/অ

শর্টলিংকঃ

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, [email protected] ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন @silkcitynews.com আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।