যে উদ্দেশে কাজাখস্তানে সেনা পাঠাল রাশিয়া

জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে চলমান বিক্ষোভ পরিস্থিতি মোকাবিলায় কাজাখস্তানের প্রেসিডেন্ট কাসিম জোমার্ট তোকায়েভ রুশ সেনাবাহিনীর সহযোগিতা চান। এরপরই রাশিয়া কালেকটিভ সিকিউরিটি ট্রিটি অর্গানাইজেশন (সিএসটিও) জোটের আওতায় প্রায় আড়াই হাজার সেনা  কাজাখস্তানে পাঠান।

কী উদ্দেশ্যে রাশিয়া কাজাখস্তানে সেনা পাঠালো, বিনিময়ে তারা কী আশা করছে, এ নিয়ে একটি বিশ্লেষণ প্রকাশ করেছে দ্য গার্ডিয়ান।

বিশ্লেষণে বলা হয়, পুতিন সম্ভবত আশা করছেন কাজাখস্তানে পাঠানো সেনারা সে দেশে দ্রুত শৃঙ্খলা পুনঃপ্রতিষ্ঠা করবে। আর তাতে মস্কোর প্রতি কৃতজ্ঞ ও ঋণী থাকবে কাজাখস্তান।

তবে এ অভিযানে কিছু ঝুঁকিও রয়েছে। অনেকে কাজাখস্তানে সিএসটিও সেনা মোতায়েনকে রুশ হস্তক্ষেপ হিসেবে দেখছেন।

কাজাখস্তান বছরের পর বছর ধরে বিশ্বের সব দেশের সঙ্গে সম্পর্ক বজায় রাখার পররাষ্ট্রনীতি অনুসরণ করে আসছে। রাশিয়ার সঙ্গে দেশটির ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক থাকলেও পশ্চিমা দেশগুলোর সঙ্গেও ভালো সম্পর্ক বজায় রাখে কাজাখস্তান। কিন্তু পশ্চিমাদের সঙ্গে কাজাখস্তানের ভালো সম্পর্কে মস্কো খুশি নয়। এমন অবস্থায় বিপদে দেশটিতে সেনা পাঠিয়ে কাজাখস্তানের কাছ থেকে মস্কো কিছু দাবিদাওয়া পূরণ করিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করতে পারে।

এ প্রসেঙ্গ রাশিয়ায় রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সংবাদমাধ্যম আরটির এডিটর ইন চিফ মারগারিতা সিমোনিয়ান এক টুইট বার্তায় বলেছেন, অবশ্যই আমাদের সহযোগিতা করা উচিত। তবে এ ক্ষেত্রে আমাদের কিছু শর্ত বেঁধে দেওয়া উচিত। তিনি যেসব শর্তের কথা বলেছেন, তার মধ্যে রয়েছে কাজাখস্তানে রুশ ভাষাকে দ্বিতীয় রাষ্ট্রীয় ভাষার মর্যাদা দেওয়া এবং ক্রিমিয়াকে রাশিয়ার অংশ হিসেবে স্বীকার করা।

গার্ডিয়ানের বিশ্লেষণে বলা হয়, মস্কোতে কেউ কেউ সিএসটিও জোটকে কীভাবে নিচ্ছে, সেটা বোঝার ইশারা হতে পারে এটি। মস্কোর কাছ থেকে সহযোগিতা নিয়ে কাসিম তোকায়েভ যদি বিক্ষোভ নস্যাৎ করে দিতে পারেন, তবে বিনিময়ে রাশিয়াও কাজাখস্তান থেকে কিছু আশা করতে পারে।

কাজাখস্তানে গত শনিবার এলপিজির দাম দ্বিগুণের বেশি বাড়ানো হয়। এর প্রতিবাদে রোববার দেশটির তেলসমৃদ্ধ প্রদেশ মানজিস্তাউয়ে বিক্ষোভ শুরু হয়। পরে এই বিক্ষোভ আলমাতিসহ দেশটির অন্যান্য জায়গায় ছড়িয়ে পড়ে। বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর সংঘর্ষে এ পর্যন্ত ২৬ জন বিক্ষোভকারী ও নিরাপত্তা বাহিনীর ১৮ জন সদস্য নিহত হয়েছেন।

 

সূত্রঃ যুগান্তর