যবিপ্রবির সাবেক উপাচার্যের ছেলের রহস্যজনক মৃত্যু

সিল্কসিটিনিউজ ডেস্ক:

 

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) সাবেক উপাচার্য এবং ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত রসায়ন ও কেমিকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আব্দুস সাত্তারের বড় ছেলে ওয়াসেক সাত্তার আবিরের (২৫) রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে ঢাকার হাতিরঝিলে পানিতে ডুবে তার মৃত্যু হয়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে।

ওয়াসেক সাত্তার আবিরের ছোট ভাই ওয়াসিফ সাত্তার নিবিড় জানান, ২৩ নভেম্বর রাতে যশোর থেকে মায়ের সঙ্গে ঢাকায় যান ওয়াসেক সাত্তার আবির। মঙ্গলবার বিকেলে একটি ফোন পেয়ে তিনি হাতির ঝিলের দিকে যান। রাতে হাতির ঝিল থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। কিভাবে সে হাতিরঝিলে পড়ে গেল, তা পরিষ্কার নয়। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে।

ওয়াসেক সাত্তার আবিরের ছোট ভাই ওয়াসিফ সাত্তার নিবিড় জানান, ওয়াসেক সাত্তার আবির মালয়েশিয়ার পুত্রামালায় ইউনিভার্সিটিতে (ইউপিএম) সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে লেখাপড়া করতো। করোনার কারণে সে দেশে অবস্থান করছিল। হাসপাতাল থেকে লাশ পাওয়ার পর যশোরে নিয়ে এসে তার দাফন করা হবে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

এদিকে, ওয়াসেক সাত্তার আবিরের অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন যবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন।

এক শোক বাণীতে অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, পৃথিবীর সবচেয়ে ভারী বস্তু হলো- পিতার কাঁধে সন্তানের লাশ। একজন তরুণের এমন মৃত্যু কখনোই কাম্য হতে পারে না। একজন পিতা হিসেবে আবিরের মৃত্যুতে আমার হৃদয়ে সন্তান হারানোর গভীর ক্ষত সৃষ্টি হলো। আমি আবিরের রুহের মাগফিরাত কামনা করছি এবং তার শোকসন্তপ্ত পিতা-মাতা, পরিবার-পরিজন, দীর্ঘদিনের সহপাঠীসহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।

এদিকে ওয়াসেক সাত্তার আবিরের অকাল প্রয়াণে যবিপ্রবির শিক্ষক সমিতি, কর্মকর্তা সমিতি ও কর্মচারী সমিতি গভীর শোক প্রকাশ করেছে। একইসঙ্গে যবিপ্রবি ছাত্রলীগ, সাংবাদিক সমিতিসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনও গভীর শোক প্রকাশ করেছে।

 

সূত্র: কালেরকন্ঠ

শর্টলিংকঃ

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, silkcitynews@gmail.com ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন @silkcitynews.com আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।