মোহনপুরে মাদকাসক্ত ছেলের ছুরিকাঘাতে বাবা আহত


নিজস্ব প্রতিবেদক:
রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলায় মাদকাসক্ত ছেলের ধারালো ছুরিকাঘাতে বাবা গুরুতর আহত হয়ে রামের  হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারী) দুপুর সোয়া ১২ টার  দিকে উপজেলার ঘাসিগ্রাম ইউনিয়নের আতানারায়নপুর হাজী পাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা মাদকাসক্ত ওই ছেলেকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। আহত ফজলুর রহমান রাজশাহী মেডিকেল কলেজ রামেক হাসপাতালে ভর্তি করেছেন।

স্থানীয় ও পুলিশের সূত্রে জানা গেছে, মোহনপুর উপজেলার আতানারায়নপুর গ্রামের ফজলুর রহমান (৫৫) ছেলে আব্দুর রাশিদ (৩৫) দীর্ঘদিন ধরে মাদক সেবন করে আসছে। বৃহস্পতিবার দুপুর সোয়া ১২ টার সময় মাদকাসক্ত ছেলে আব্দুর রশিদ নিজ বাড়িতে এসে বাবা ফজলুর রহমানের কাছে শেশার টাকা চাই। তিনি টাকা না দিতে চাইলে এক পর্যায়ে ধারালো ছুরি দিয়ে আব্দুর রশিদ তার বাবার পেটে আঘাত করে । এতে ফজলুর রহমান মাটিতে লুটিয়ে পড়লে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ রামেক হাসপাতালে হাসপাতালে পাঠায় এবং আব্দুর রশিদকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে মোহনপুর থানার এসআই মো: শফিকুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে ধরালো ছুরিসহ রশিদকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

পরিবারের লোকজন জানান, আব্দুর রশিদ নেশায় আসক্ত। নেতার কারণে স্ত্রী তাকে ছেলে চলে গিয়েছে। নেশা গ্রস্ত হয়ে সব সময় তার বাবাসহ পরিবারের  কারণে-অকারণে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করত। বৃহস্পতিবার দুপুর সোয়া ১২ টার সময় নেশার টাকা না পাওয়ার কারণে গালাগালির এক পর্যায়ে তার বাবাকে ছুরি দিয়ে আঘাত করে। পরে স্থানীয়রা আব্দুর রশিদকে আটক করে পুলিশকে খবর দেওয়া হলে পুলিশ তাকে থানায় নিয়ে যায়। আহত ফজলুর রহমানকে গুরুতর আবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

মোহনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হরিদাস মন্ডল বলেন, অভিযুক্ত আব্দুর রশিদকে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে এলাকাবাসী৷ পুলিশ তাকে থানায় নিয়ে আসে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।