মৃত্যুর কথাটা মাথায় রাখলে ঈমানদার হতে পারব: হাছান মাহমুদ

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘ইসলামের মূল মর্মবাণী হচ্ছে মানুষের প্রতি দয়া এবং মানবসেবা। ইসলামের মূল মর্মবাণী যদি বুকে ধারণ করে অনুশীলন করি তাহলে সমাজ ও রাষ্ট্রে হানাহানি কমে যাবে।’

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া রাহাতিয়া দরবারে ওরছে নঈমী উপলক্ষে গেল বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে আয়োজিত মাহফিল ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

রাঙ্গুনিয়া নুরুল উলুম কামিল মাদ্রাসা মাঠে আয়োজিত মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন রাহাতিয়া দরবারের সাজ্জাদানশীন সৈয়্যদ মুহাম্মদ ওবাইদুল মোস্তফা নঈমী।

বক্তব্য দেন- আল্লামা ড. এরশাদ বোখারী, রাঙ্গুনিয়া সরকারি কলেজের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. মুহাম্মদ আবদুল মাবুদ, আল্লামা নাছির উদ্দিন তৈয়্যবী, আল্লামা নিজাম উদ্দিন নঈমী প্রমুখ।

হাছান মাহমুদ আরও বলেন, ‘আমরা সবাই জন্মগ্রহণ করেছি মৃত্যুবরণ করার জন্য, কেউ তো আর অনন্তকাল বেঁচে থাকবে না। আমরা সবাই ক্রমান্বয়ে মৃত্যুর দিকে ধাবিত হচ্ছি। যদি এই কথাটা মাথায় রাখি তাহলে প্রত্যেকেই ঈমানদার হতে পারব।’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘পৃথিবীর এমন কোনো দেশ নেই, যারা মানবতায় তাদের সীমান্ত খুলে দিয়েছে। রোহিঙ্গাদের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সীমান্ত খুলে দিয়েছেন। আমরা তাদেরকে এদেশে খাবার দিচ্ছি। অন্য দেশও সহায়তা দিচ্ছে।  উখিয়া ও টেকনাফের মানুষ তাদের যেভাবে সাদরে গ্রহণ করেছে এজন্য তাদেরকে আমি ব্যক্তিগতভাবে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’

তিনি বলেন, ‘আমি সবাইকে সহযোগিতা করার চেষ্টা করছি, কে কোন দল করে সেটা বিবেচনা না করে সবাইকে সমান চোখে দেখেছি।  কাজের চাপে কোনো সময় কারো সঙ্গে যদি রাগারাগি করি, তাহলে পরে তার ফোন নাম্বার সংগ্রহ করে তার সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। আমার জায়গা থেকে চেষ্টা করি, সবাইকে সহযোগিতা করার জন্য।’

 

সূত্রঃ যুগান্তর