বৃহস্পতিবার , ১৬ মে ২০২৪ | ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. অপরাধ ও দুর্নীতি
  3. অর্থ ও বাণিজ্য
  4. আইন আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. কৃষি
  7. খেলা
  8. চাকরীর খবর
  9. ছবিঘর
  10. জাতীয়
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দুর্ঘটনা
  13. ধর্ম
  14. নারী
  15. নির্বাচিত খবর

ভিএআর বাতিলে ভোটের আয়োজন করছে ইংলিশ ক্লাব

Paris
মে ১৬, ২০২৪ ১২:৩২ অপরাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক:
ফুটবল মাঠে আরও নিরপেক্ষ ও সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণে আনা হয়েছিল ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি বা ভিএআর প্রযুক্তি। কিন্তু সমাধানের সেই অস্ত্র নিজেই যেন সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। যে কারণে এবার ভিএআর বাতিলে ভোটের আয়োজন করতে যাচ্ছে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ক্লাব উলভস। পরবর্তী মৌসুমেই যেন এই প্রযুক্তি তুলে নেওয়া হয়– এ নিয়ে তারা আগামী মাসে (জুন) বার্ষিক সভায় ভোটের আয়োজন করবে।

আনুষ্ঠানিকভাবে ভিএআর সমস্যার সমাধান দিতে প্রিমিয়ার লিগ কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছে উলভস। এ নিয়ে ৬ জুন ২০ ক্লাবের উপস্থিতিতে ভোট হতে পারে বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম বিবিসি। ফুটবলে নতুনত্ব আনা প্রযুক্তিটি বাতিলে যৌক্তিকতা দেখিয়ে ক্লাবটি জানিয়েছে— উলভসের ‘দৃঢ় বিশ্বাস ছিল’ ভিএআরে। কিন্তু অনিচ্ছা সত্ত্বেও এই প্রযুক্তির কারণে ফুটবল ও ভক্তদের সম্পর্ক পরিবর্তিত হয়ে যাচ্ছে, নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে ফুটবলাঙ্গনে।

এর আগে ক্লাব, সমর্থক, রেফারি হতে শুরু করে সাধারণ দর্শক—সবার কাছে রেফারির সিদ্ধান্ত যতটা সম্ভব গ্রহণযোগ্য করে তুলতে ফুটবলে ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি বা ভিএআর ব্যবস্থা চালু করা হয়েছিল। ফুটবলের আইন ও বিধি প্রণয়নের দায়িত্বে থাকা ইন্টারন্যাশনাল ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন বোর্ড (আইএফএবি) এটিকে ফুটবল আইনে যুক্ত করে ২০১৮ সালে।

কিন্তু অর্ধযুগের পথচলায় ভিএআরের আওতা ও ব্যবহার বাড়লেও রেফারির সিদ্ধান্ত নিয়ে বিতর্ক কমেনি। বরং ভিএআর সংযোজনের পর ভুলের সংখ্যা যতটা না কমেছে, তার চেয়ে বেশি এর ভুল ও অসংগতি নিয়ে সমালোচনা বেড়েছে। বেশিরভাগ ঘটনাতেই সমর্থকরা রেফারিদের বিশ্বাস করেন না, আর কোচ এবং খেলোয়াড়রাও বুঝতে পারেন না কোন সিদ্ধান্তটা কেন নেওয়া হয়েছে। তাই তো বেশ আগে থেকেই ভিএআরের যৌক্তিকতা নিয়ে বিভিন্ন ক্লাবকে প্রশ্ন তুলতে দেখা যায়।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের চলতি মৌসুমেও ভিএআর প্রযুক্তি বেশ কয়েকটি বিতর্কিত সিদ্ধান্ত দিতে দেখা গেছে। এ নিয়ে উলভস বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘খেলার মাঠে সামান্য যথার্থতা বাড়াতে গিয়ে আমাদের বড় মূল্য দিতে হচ্ছে। এমনকি খেলার স্পিরিট নিয়েও এটি দর্শকদের মাঝে মতভেদ তৈরি করছে।’ ভিএআর নিয়ে উদ্বেগের বিষয়টি সতর্কতার সঙ্গে পর্যবেক্ষণ করছে প্রফেশনাল গেম ম্যাচ অফিসিয়াল বোর্ড (পিজিএমওএল)। তবে একইসঙ্গে রেফারির কাজকে সহজ করতে প্রযুক্তি ব্যবহারে সমর্থন দেওয়ার কথাও জানিয়েছে সংস্থাটি।

এদিকে, কোনো নিয়ম পরিবর্তনে দুই–তৃতীয়াংশ ভোট প্রয়োজন হয় ইপিএলে। ফলে ২০ ক্লাবের মধ্যে অন্তত ১৪টির ভোট লাগবে ওই মতামতের পক্ষে। ইতোমধ্যে ২০২৪–২৫ মৌসুমের জন্য প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবগুলো সেমি–অটোমেটেড অফসাইড প্রযুক্তি নিয়ে ভোট সম্পন্ন করেছে।

সর্বশেষ - খেলা