ভার্চুয়াল ইয়ুথ পার্লামেন্ট অধিবেশন সম্পন্ন

নিউজ ডেস্ক

ইয়ুথ পার্লামেন্টের আয়োজনে বাংলাদেশে প্রথম ভার্চুয়াল ইয়ুথ পার্লামেন্ট অধিবেশন সম্পন্ন করোনা পরিস্থতিতে যখন সারা বিশ্ব স্থবির তখন বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থায় নতুন মাত্রা যোগ করেছে অনলাইন ক্লাস। আর অনলাইন ক্লাস ডিজিটাল বাংলাদেশ রূপায়ণে কিরূপ ভূমিকা পালন করবে তা নিয়ে ১৮ই জুলাই ২০২০ বাংলাদেশে প্রথম বারের মত আয়োজন করা হয়েছে ভার্চুয়াল ইয়ুথ পার্লামেন্ট অধিবেশন। দু’দিন ব্যাপী চলা এ অধিবেশনে অংশগ্রহণ করেন বাংলাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীবৃন্দ এবং দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে অংশ নেওয়া মেধাবী তরুণরা।

কাজাকিস্থানের বানকিমুন ইন্সটিটিউট ফর এসডি এবং কসমস গ্লোবাল নেটওয়ার্কের সহযোগিতায় ইয়ুথ পার্লামেন্টের অধিবেশনের উদ্বোধন ও রাষ্ট্রপতির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের সুনামধন্য রাজনীতি বিশ্লেষক এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের অধ্যাপক, প্রফেসর ডঃ শাহ আজম শান্তনু ।

বক্তব্য প্রদান করেন ইয়ুথ পার্লামেন্টের সাধারণ সম্পাদক জনাব বিবেক মোর এবং কাজাকিস্থানের বানকিমুন ইন্সটিটিউট ফর এসডি এর প্রতিনিধি বিবি আলোমানোভা। মাননীয় স্পিকারের দায়িত্ব পালন করেন উক্ত প্ল্যাটফর্মের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি জনাব সরকার তানভীর আহমেদ তানিম। ডেপুটি স্পিকার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইয়ুথ পার্লামেন্টের জাতীয় এম্বাসেডর নওশিন ইয়াসমিন এবং ইয়ুথ ক্যাম্পাস এম্বাসেডর মাসুমা আন্নি।

প্রধান অতিথি বলেন, “কোন দুর্যোগ তরুণদের দমিয়ে রাখতে পারবেনা। অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রমকে সমর্থন জানিয়ে আনিত প্রস্তাবটি বিবেচনা করতে তরুণ সাংসদদের প্রতি অনুরোধ করেন। “ অধিবেশনের সমাপনিতে বক্তব্য প্রদান করেন কমনওয়েলথ সেক্রেটারিয়েটের পিস বিল্ডিং ট্রেইনার ও ব্রিটিশ কাউন্সিলের ইয়ুথ লিডার জনাব মুরসালিন শাহ, বিতর্ক সংগঠক ও রাজধানীর গ্রিন হেরাল্ড আন্তর্জাতিক স্কুলের সিনিয়র ফ্যাকাল্টি জনাব শরিফুল আনোয়ার, ইয়ুথ পার্লামেন্টের সমন্বয়ক জনাব রাব্বিল আলামিন প্রমুখ। দিনব্যাপী উক্ত অধিবেশনে বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলার তরুণরা নিজ আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে অংশগ্রহণের মাধ্যমে অনলাইন ক্লাস ডিজিটাল বাংলাদেশ রূপায়ণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন বিষয়ে নিজেদের অভিমত ও যুক্তির মাধ্যমে সংসদকে প্রাণবন্ত করে তোলেন। বিভক্তি ভোটের মাধ্যমে “বাংলাদশের প্রতিটি শিক্ষাস্তরে অনলাইন ক্লাস ডিজিটাল বাংলাদেশ রূপায়ণে ভুমিকা রাখবেমর্মে আনিত প্রস্তাবনাটি গ্রহণ করা হোক মর্মে ভোটিং অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত ভোটের ফলাফলে অনলাইন ক্লাস ডিজিটাল বাংলাদেশ রূপায়ণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে প্রস্তাবনাটি সংসদে গৃহীত হয়। এছারাও অধিবেশনের প্রথম দিন ১৭ জুলাই শুক্রবার, অংশগ্রহণকারী সকল মাননীয় যুব সাংসদদের নিয়ে কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত কর্মশালায় উদ্বোধনী বক্তব্য প্রদান করেন, ইয়ুথ পার্লামেন্টের সাধারণ সম্পাদক বিবেক মোর। প্রধান অতিথি ও বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সিলেট মেট্রোপলিটান বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের প্রধান গাজী শাফিউল হাসান। বিতর্ক সংগঠক ও রাজধানীর গ্রিন হেরাল্ড আন্তর্জাতিক স্কুলের সিনিয়র ফ্যাকাল্টি শরিফুল আনোয়ার, কসমস আন্তর্জাতিকের প্রতিষ্ঠাতা সিঙ্গাপুরের সুনামধন্য উদ্যোগটা মিস পুজা শুকলা এবং ইয়ুথ পার্লামেন্টের সভাপতি সরকার তানভীর আহমেদ তানিম।

কর্মশালায় অতিথিবৃন্দ সংবিধান ও সংসদীয় ব্যবস্থা, সংসদের কার্যাবলী ও ইয়ুথ পার্লামেন্ট পদ্ধতি, বৈশ্বিক দিক বিবেচনায় ডিজিটাল শিক্ষাব্যবস্থা এবং অধিবেশনের প্রস্তাবনার ওপরে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করা হয়।

উক্ত আয়োজনের অন্যতম ক্লাব পার্টনার ছিলো রাজশাহী কলেজের পায়োনিয়ার ক্লাব রবং মিডিয়া পার্টনার হিসেবে সুনামধন্য বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম। বাংলাদেশের প্রথম ভার্চুয়াল ইয়ুথ পার্লামেন্ট অধিবেশনের উল্লেখযোগ্য অংশগ্রহকারী হচ্ছেন,তামান্না মুসতারী (প্রধানমন্ত্রী), শাপলা সুলতানা ( সংসদ উপনেতা), ফয়সাল আকাশ ( শিক্ষামন্ত্রী), রাব্বিউল জিলানী (আইন মন্ত্রী) এবং আলজিদা জামান ঐন্দ্রিলা ( মাননীয় চিফ হুইপ) , ছাড়াও বিরোধী দলের পক্ষে ছিলেন শাহরিয়ার মনোন ( বিরোধী দলীয় নেতা), মুশফিকুজ্জামান আকিব ( উপনেতা), মোসাঃ নিশাত আরা মিতু ( চীফ হুইপ), মোঃ মেসবাহুল ইসলাম ( হুইপ) এবং তাসনিম তাহসিন তনু ( হুইপ)।

ইয়ুথ পার্লামেন্ট চর্চা একটি বৈশ্বিক গ্রহণযোগ্য বিষয় যা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে চর্চা হয়ে থাকে। এ ধরণের মডেল সংসদে একজন তরুণ তার নিজ এলাকার প্রতিনিধি হিসেবে বিভিন্ন সমস্যা ও সমাধানে ভুমিকা রাখতে পারেন। ইয়ুথ পার্লামেন্ট চর্চা দেশ ও জাতি গঠনে ব্যাপক ভূমিকা পালন করবে বলে বক্তারা দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।- সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

শর্টলিংকঃ

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, [email protected] ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন @silkcitynews.com আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।