বেতন নিয়ে স্ত্রী খোঁটা দিলে যা করবেন

সিল্কসিটি লাইফস্টাইল ডেস্ক :
অফিস বেতন না বাড়লে আপনি কী করবেন। আপনি শুধু চেষ্টা করে যেতে পারেন মাইনে বাড়ানোর। কিন্তু কিছু সময় স্ত্রী এ বিষয়টিই বুঝতেই চান না। তাই তিনি প্রায়ই বেতন নিয়ে খোঁটা দিতে পারেন। তখন চোখের সামনে সব অন্ধকার লাগে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, স্ত্রী যদি বেতন নিয়ে খোঁটা দেন, তবে নিজেকে আগলে রাখার কাজটা আপনাকে শিখে নিতে হবে। কারণ আপনি তো আর কাজ না করে মাইনে পান না। তাই স্ত্রী যদি বারবার মাইনে নিয়ে কথা বলেন, তবে তাকে ছেড়ে দিলে চলবে না। বরং কিছু ব্যবস্থা নিতে হবে। তারপরই সমস্যার সমাধান সম্ভব।

আত্মমর্যাদা ধরে রাখুন: আপনাকে কিছু বললেই হবে না। বরং আপনাকে অবশ্যই নিজের আত্মমর্যাদার দিকটা মাথায় রাখতে হবে। স্ত্রীকেও ছেড়ে কথা বলা চলবে না। বরং তাকে উত্তর দিতে হবে। আপনি প্রথমদিনই যদি তাকে এই বিষয়ে কথা বলতে বারণ করতেন, দেখতেন আর সমস্যা হচ্ছে না। তবে এখনও দেরি হয়নি। আজও এ বিষয় নিয়ে কথা বলতে পারেন।

বউকে বোঝান: এখনই তাকে বোঝান। আপনি যে খুব চেষ্টা করছেন, এটা বলতে হবে। শুধু এই কথাটুকু বলতে পারলেই দেখবেন অনায়াসে তিনি বুঝতে পারছেন। আপনাকে আর খোঁটা দেবেন না। তবে আপনার কথায় যুক্তি থাকা দরকার। হাওয়ায় হাওয়ায় বক্তব্য রাখলেই মুশকিল। তখন সমস্যা কয়েকগুণ বৃদ্ধি পেতে পারে। সামনের দিন আরও খারাপ হতে পারে।

চেষ্টার ত্রুটি রাখবেন না: আগেই বলেছি, টাকা পয়সা প্রতিটি মানুষের প্রয়োজন। তাই স্ত্রী যদি অভাব দেখেন, তবে কথা বলবেনই। এই পরিস্থিতিতে হাত গুটিয়ে বসে থাকা পাপ। সংসারের দায়িত্ব আপনাকে কাঁধে তুলে নিতেই হবে। চেষ্টার ত্রুটি একবারেই রাখবেন না। বেশি বেতন পাওয়ার যোগ্যতা আপনার রয়েছে। শুধু একটু চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া প্রয়োজন। এদিকে-ওদিকে খবর রাখুন। কিছু একটা ভালো হয়েই যাবে।

দুইজনে হিসাব করতে বসুন: অনেকেই আছেন টাকার হিসাব রাখতে পারেন না। তাদের যত দাও তত চাই। আপনি হয়তো যথেষ্ট বেতন পাচ্ছেন। তবে স্ত্রী তাতে সন্তুষ্ট না হতে পারেন। কারণ তার এর থেকেও বেশি পরিমাণ টাকা প্রয়োজন। এই চাওয়ার কোনো অন্ত নেই। তাই তো সচেতন থাকা ছাড়া নেই কোনো উপায়। এক্ষেত্রে হিসাব নিয়ে বসুন। হাতে-কলমে বুঝিয়ে দিন যে এই টাকাটাই যথেষ্ঠ।

অন্য কোনো ইঙ্গিত নেই তো: মানুষের মনের বদল হতে সময় লাগে না। আজ একটি মানুষ একভাবে জীবনকে দেখলে, কাল তার ভাবনায় ঘটতে পারে পরিবর্তন। হয়তো তিনি আপনাকে আর পছন্দ করছেন না। সংসার ছেড়ে বেরিয়ে যেতে চাইছেন। তাই এ ধরনের কথা বার বার উঠলে বুঝবেন কোথাও একটা সমস্যা তো অবশ্যই আছে। প্রয়োজনে সরাসরি স্ত্রীকে জিজ্ঞেস করুন। একটা উত্তর পেয়ে যাবেনই।