বাগমারায় জমি জালিয়াতির দায়ে স্বামী-স্ত্রী গ্রেফতার

নিউজ ডেস্ক
  • 223
    Shares

বাগমারা প্রতিনিধি:

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার হামিরকুৎসা ইউনিয়নের তালঘরিয়া গ্রামে জমি জালিয়াতির দায়ে স্বামী-স্ত্রী কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। যোগীপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ তৌহিদুর রহমান সঙ্গীয় ফোর্সসহ শনিবার রাতে অভিযান চালিয়ে নিজ বাড়ি থেকে তাদের গ্রেফতার করেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলো- তালঘরিয়া গ্রামের মৃত মারফতুল্লাহ খান এর ছেলে আতাউর রহমান খান (৪৬) ও তার স্ত্রী বিলকিছ নাহার (৩৩)।

জানা যায়, তালঘরিয়া গ্রামের মৃত মারফতুল্লাহ খান এর ছেলে আতাউর রহমান খান ও তার স্ত্রী বিলকিছ নাহার পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে বিভিন্ন জনের সঙ্গে জমি নিয়ে প্রতারনা করে আসছে। এ নিয়ে একই গ্রামের সাইফুল ইসলাম তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। এর প্রেক্ষিতে পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে।

আতাউর রহমান তার নামীয় ছয় শতক জমি তার স্ত্রীর নামে রেজিস্ট্রি করে দেয়ার কয়েকদিন পর একই জমি স্থানীয় সাইফুল ইসলামের কাছে বিক্রি করেন। একই ভাবে গোলাম কিবরিয়া নামক ব্যাক্তির কাছেও ২০ শতক জমি বিক্রি করেন যা কয়েকদিন পূর্বে তার স্ত্রীর নামে রেজিস্ট্রি করে দেয়। তারা দুই স্বামী-স্ত্রী পরিকল্পিত ভাবে দীর্ঘদিন ধরে জমি বিক্রি নিয়ে এরকম জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে আসছে। সাইফুল ইসলাম ও গোলাম কিবরিয়া ছাড়াও আরো কয়েকজনের সঙ্গে এমন ঘটনা ঘটেছে বলে জানা যায়।

সাইফুল ইসলাম জানান, প্রায় নয় বছর পূর্বে আতাউর রহমান খানের কাছ থেকে ছয় শতক জমি কেনা হয়েছে। তখন থেকেই ওই জমি ভোগ দখল করে আসছি। কিন্ত কিছুদিন পূর্বে আতাউরের স্ত্রী বিলকিছ নাহার ওই জমি তার নামে রয়েছে বলে জোরপূর্বক ভাবে কয়েকটি গাছের আম নামিয়ে দখল করে নেয়। এ বিষয়ে প্রতিবাদ জানালে সাইফুল ইসলাম কে ভয়ভীতি দেখায় এবং চাঁদা দাবি করে বলে জানা যায়। স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহলের ইন্দনে আতাউর এসব কর্মকান্ড করে বলেও অভিযোগ রয়েছে। স্বামী-স্ত্রীর এমন প্রতারনার কারনে স্থানীয়দের মাঝেও ক্ষোভ দেয়।

যোগাযোগ করা হলে বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আতাউর রহমান জানান, গ্রেফতারকৃতদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

স/অ

শর্টলিংকঃ

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, [email protected] ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন @silkcitynews.com আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।