বগুড়া আজিজুল হক কলেজ ক্যাম্পাসে ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত

  • 22
    Shares

বগুড়ায় দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে বিশু মিয়া (৩২) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। রবিবার রাত ৯টার দিকে বগুড়া সরকারি আজিজুল হক কলেজ ক্যাম্পাসের বিজ্ঞান ভবনের পিছনে ঘটে।

নিহত বিশু মিয়া ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাবেক শিক্ষার্থী। তিনি শিবগঞ্জ উপজেলার দেউলী ইউনিয়নের পাকুড়িয়া গ্রামের মৃত জাহিদুল ইসলামের ছেলে। আজিজুল হক কলেজ থেকে ২০১৬-১৭ বর্ষের একাউন্টিং বিভাগ থেকে মাস্টার্স পাশ করেছেন বিশু। খবর পেয়ে সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফয়সাল মাহমুদ, সদর থানার ওসি সেলিম রেজা ও ডিবির ওসি আব্দুর রাজ্জাক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

জহুরুল নগর এলাকার ব্যবসায়ী আব্দুস সামাদ জানান, তার এলাকার এক ছেলে দৌড়ে গিয়ে তাকে জানায় কলেজের মধ্যে এক যুবক রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে তিনি উপশহর পুলিশ ফাঁড়িকে খবর দেন।

ঘটনাস্থলে নিহতের ছোট বোন জাহানারা খাতুন জানান, তার ভাই বাড়ি থেকে ৪ হাজার টাকা নিয়ে তার ছাত্রাবাসে এসেছিল। তিনি শহরের জামিলগর এলাকায় একটি ছাত্রাবাসে থাকতেন এবং চাকরির পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। রাত সাড়ে ৮টার দিকে তার ভাইয়ের সাথে মোবাইলে সর্বশেষ কথা হয়। এসময় তার ভাই তাকে জানায়, সে মুন হলের সামনে আছে। ছাত্রাবাসে গিয়ে তাকে মোবাইলে কল করে জানাবে।

এদিকে ঘটনাস্থল থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে পুলিশ।

বগুড়া সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফয়সাল মাহমুদ জানান, আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি।  নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। কী কারণে ঘটনাটি ঘটল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (২ এপ্রিল) রাত সাড়ে ৮টার দিকে বগুড়া সরকারি আজিজুল হক কলেজ ক্যাম্পাসের বিজ্ঞান ভবনের পিছনে এসআই রবিউল ইসলামকে (৩০) দুর্বৃত্তরা ছুরিকাঘাত করে। বর্তমানে তিনি বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

 

সুত্রঃ বাংলাদেশ প্রতিদিন

শর্টলিংকঃ

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, silkcitynews@gmail.com ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন @silkcitynews.com আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।