বুধবার , ২২ মার্চ ২০২৩ | ১১ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. অপরাধ ও দুর্নীতি
  3. অর্থ ও বাণিজ্য
  4. আইন আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. কৃষি
  7. খেলা
  8. চাকরি
  9. ছবিঘর
  10. জাতীয়
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দুর্ঘটনা
  13. ধর্ম
  14. নারী
  15. নির্বাচিত খবর

বগুড়ায় পৌরসভার কর্মকর্তাদের অংশগ্রহণে প্রশিক্ষণ

Paris
মার্চ ২২, ২০২৩ ৫:৫৬ অপরাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক :
বগুড়ার হোটেল মম ইন রিসোর্ট সেন্টারে, ইউএসএআইডি লোকাল হেল্থ সিস্টেম সাসটেইনেবিলিটি (এলএইচএসএস) প্রকল্পের ৩দিনব্যাপী প্রশিক্ষণে সমাপনী অনুষ্ঠিত হয়। সিরাজগঞ্জ ও নওগাঁ পৌরসভার কর্মকর্তাদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত প্রাইমারি হেলথ কেয়ার (পিএইচসি) ম্যানেজমেন্ট প্রশিক্ষণে নগরীর প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে কর্মকর্তা এবং জনপ্রতিনিধিদের সক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যেই এই প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয় বলে জানান।

নগর পর্যায়ে দরিদ্র ও প্রান্তিক মানুষের প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবার সুযোগ সৃষ্টিতে ইউএসএআইডি-এলএইচএসএস প্রকল্প বাংলাদেশের ৩ টি সিটি কর্পোরেশন ও ১১টি পৌরসভায় কীভাবে কারিগরি সহায়তা প্রদান করে আসছে তাও তুলে ধরা হয়। আজ বুধবার তিনদিন ব্যাপী এ প্রশিক্ষনের সমাপনী হয়।

বগুড়া পৌর মেয়র মো. রেজাউল করিম বাদশা বলেন, স্বাদ আছে সাধ্য নেই। “শীঘ্রই আমরা বগুড়া পৌরসভায় বন্ধ পরে থাকা চারটা ক্লিনিকে নতুন করে কার্যক্রম শুরু করবো। চারটা ক্লিনিক চালুকরণে এলএইচএসএস এর ভুমিকা প্রশংসনীয়। তারা এগিয়ে না আসলে এটা হতোই না।

নওগাঁ পৌরসভার মেয়র, নাজমুল হক সনি বলেন, প্রাথমিক স্বাস্থসেবা বাস্তবায়নের সাথে সরাসরি যুক্ত থাকার প্রতিশ্রুতি জানিয়ে বলেন, নওগাঁ পৌরসভায় স্বাস্থ্যসেবার অগ্রগতিতে এই প্রশিক্ষণ খুব গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখবে। আমি ব্যক্তিগতভাবে প্রশিক্ষণ পরবর্তী কাজের অগ্রগতিফলো আপ করবো, যাতে দরিদ্র জনগোষ্ঠীর স্বাস্থসেবা নিশ্চিত হয়। এসময় ইউএসএআইডি এলএইচএসএস প্রজেক্ট চিফ অব পার্টি রাজিব আহুজা অংশগ্রহণকারীদের ধন্যবাদ জানান।

বাংলাদেশে ইউএসএআইডি লোকাল হেল্থ সিস্টেম সাসটেইনেবিলিটি (এলএইচএসএস) নগর কেন্দ্রিক স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের সাথে কাজ করছে, যা স্থানীয়ভাবে সম্পদ আহরণ এবং ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে নগর প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবায় সকলের অবাধ প্রবেশ নিশ্চিত ও উন্নত সেবা নিশ্চিত করা যায়। পাশাপাশি দুর্বল জনগোষ্ঠীর জন্য আর্থিক সুরক্ষার ব্যবস্থা যাতে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান করতে পারে সেটি তুলে ধরার প্রক্রিয়াও প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণমূলক আলোচনা উঠে আসে। প্রশিক্ষণ শেষে পৌরসভাসমূহ বাজেটসহ একটি প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা পরিকল্পনা গ্রহণ করবেন।

২০২১ থেকে চার বছর মেয়াদী প্রকল্পটি স্থানীয় সরকার তথা সিটি কর্পোরশেন ও পৌরসভার সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে প্রযুক্তিগত সহায়তা প্রদানের জন্য চট্রগ্রাম, রাজশাহী এবং সিলেট বিভাগের ৩টি সিটি কর্পোরেশন একই সাথে ১১টি জেলা সদরের পৌরসভার সাথে নিবিড়ভাবে কাজ করছে যাতে নাগরিকরা নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্রের পরিষেবা ব্যবহার করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থার অগ্রগতির জন্য স্বাস্থ্য সক্ষমতা তৈরি করা গুরুত্বপূর্ণ, বিশেষ করে নগর এলাকায় যেখানে পরিবেশগত কারণে দুর্বল স্যানিটেশন এবং উচ্চ জনসংখ্যার ঘনত্বের কারণে মানুষ অসংখ্য স্বাস্থ্য চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হন। প্রশিক্ষণটি এমন একটি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে পরিচালনা করা হচ্ছে য তে করে একটি প্রাপ্তবয়স্ক-শিক্ষা পদ্ধতিতে পরিকল্পিতভাবে, পৌরসভাগুলিকে তাদের স্থানীয় প্রেক্ষাপটে উপযোগী প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা বাস্তবায়নে পরিকল্পনা তৈরি, বাজেট ও সম্পদ সংগ্রহ এবং উপকারভোগীদের সম্পৃক্ত করতে সহায়তা করবে। সিরাজগঞ্জ ও নওগাঁ পৌরসভার স্বাস্থ্য বিষয়ক স্থায়ী কমিটির সদস্য, পৌরসভার হিসাবরক্ষক, পৌর নির্বাহী কর্মকর্তা, স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ও নগর পরিকল্পনাবিদসহ ২৩ জন অংশগ্রহণকারী প্রশিক্ষণে অংশ নেন

সর্বশেষ - রাজশাহীর খবর