নগরজুড়ে অটোরিকশা চালকদের বিক্ষোভ-ভাঙচুর, যাত্রীদের ভোগান্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক:

সারাদিন অটোরিকশা চালানো, অটোর ভাড়া বৃদ্ধিসহ কয়েকদফা দাবিতে রাজশাহীতে বিক্ষোভ করেছে চালকরা। আজ রবিবার সকাল থেকে নগরীতে ধর্মঘটের ডাকা দিয়ে রেখে নগর ভবনের সামনে তারা এ বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করছে। এসময় তারা বিভিন্ন যানবাহনে ভাঙচুর চালায়।

এদিকে হঠাৎ অঘোষিত অটোরিকশা ধর্মঘটের কারণে চরম দুর্ভোগে পড়ে যাত্রীরা। বাধ্য হয়ে দুপুর যাত্রীদের রিকশায় চলাচল করতে হয়েছে। আর এই সুযোগে রিকশাচালকরা যাত্রীদের নিকট থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করে।

সরেজিমেন দেখা যায়, রবিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় নগরীর লক্ষ্মীপুর থেকে আলুপট্টিতে যাওয়ার জন্য অটোরিকশার জন্য অপেক্ষা করছিলেন যাত্রী আব্দুল্লাহ আল নোমান। কিন্তু জানতেনা যে, অটোরিকশা চালকরা ধর্মঘটে ডাক দিয়েছে। পরে বিষয়টি জানতে পেরে ৫০টাকা ভাড়া মিটিয়ে তিনি আলুপট্টির উদ্দেশ্যে রিকশায় রওয়ানা দিলেন।

নোমান বলেন, দুই একদিন পর পর অটোরিকশা চালকদের কী হয়? তারা এভাবে হঠাৎ যানবাহন বন্ধ করে দেয়ায় আমাদের মত জনসাধারণের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। আর এই সুযোগে রিকশাচালকরা অতিরিক্ত ভাড়া যাত্রীদের নিকট থেকে আদায় করছে।

শুধু নোমান নয়; পুরো নগরী ঘুরে দেখা গেছে- কোথাও কোনো অটোরিকশা চলছে না। রিকশার রাজত্বে পুরো নগরীতে চলছে। সেই সাথে রিকশাচালকরা যাত্রীদের নিকট থেকে গলাকাটা ভাড়া আদায় করছে।

এদিকে নগর ভবনের সামনে অটোচালকদের আশ^স্ত করতে দুপুরে তাদের সামনে আসেন সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। তিনি আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারির মধ্যে অটোরিকশার ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিশ্রুতি দিলে ধর্মঘট তুলে নিয়ে তারা পুনরায় অটোরিকশা চালানো শুরু করে।

এসময় অটোরিকশাচালকরা জানান, রিকশার ক্ষেত্রে সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ দুই বেলা দুই রংয়ের রিকশা চালুর করা বলেছিলো। কিন্তু তারা আন্দোলন করে সারাদিন চালানোর অনুমতি পেয়েছে। কিন্তু আমরা কেন দুইবেলা তথা সারাদিন চালাতে পারবো না। তারপরও আমরা সেটি মেনে নিয়েছি। এখন সবকিছুর দাম উর্ধ্বমূখি। কিন্তু অটোরিকশার ভাড়া বৃদ্ধি করা হচ্ছে না। বছরের শুরুতে অটোরিকশার ভাড়া বৃদ্ধির ঘোষণা দেয়া হলেও পরে পূর্বের ভাড়াই বহলা রাখা হয়েছে। মূলত অটোরিকশার ভাড়া বৃদ্ধির দাবিতে আমাদের এই আন্দোলন। দাবি মেনে নেয়ার আশ^াস দেয়ায় আমরা কাজে যোগ দিয়েছি।

নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারণ চন্দ্র বর্মন বলেন, অটোচালকদের বিক্ষোভের খবর শুনে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।

এএইচ/এস