রবিবার , ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ | ৩রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. অপরাধ ও দুর্নীতি
  3. অর্থ ও বাণিজ্য
  4. আইন আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. কৃষি
  7. খেলা
  8. চাকরি
  9. ছবিঘর
  10. জাতীয়
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দুর্ঘটনা
  13. ধর্ম
  14. নারী
  15. নির্বাচিত খবর

দুর্গাপুরে সন্ত্রাসী কার্যকলাপ ও চাঁদাবাজিতে অতিষ্ট এলাকাবাসী

Paris
ফেব্রুয়ারি ৩, ২০১৯ ৭:৪৩ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:
রাজশাহীর দুর্গাপুরে কতিপয় লোকের বিরুদ্ধে জনগণকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়া, মারধর, চাঁদাবাজি, বাড়িঘর ভাঙচুর, জমি দখলসহ নানা অভিযোগ উঠেছে। এসব বিষয় স্থানীয় প্রশাসনকে জানালেও তারা কোনো পদক্ষেপ নেননি বলেও অভিযোগ করা হয়। দুর্গাপুর উপজেলার জয়নগর ইউনিয়নের বাজুখলসী গ্রামের বাসিন্দারা এসবের প্রতিকার চেয়ে সম্প্রতি রাজশাহী জেলা পুলিশ সুপার বরাবর আবেদন করেন।

আবেদনপত্রে বলা হয়, উপজেলার জয়নগর ইউপির বাজুখলসী গ্রামের সলেমানের ছেলে আকবর হোসেন (বিপ্লব), সলেমনের ছেলে বাহার আলী, বাহারের ছেলে মেহেদী, মৃত গরীবুল্লাহ’র ছেলে মো. আহাদ আলী, আ. মান্নানের ছেলে মো. কালাম, আমজাদ হোসেনের ছেলে শিমুল ও হোসেনের ছেলে সজল এবং দুর্গাদহ গ্রামের চেরুর ছেলে সুজন বিভিন্নভাবে মানুষকে হেনস্থা করছে।

এর মধ্যে গত ৩০ ডিসেম্বর বাজুখলসী গ্রামের বাসিন্দা ও সাবেক ইউপি মেম্বার জাকির হোসেনের উপর অতর্কিতভাবে হামলা চালায় মেহেদী, সুজন, শিমুল ও সজল। এ হামলার হুকুম দেয় বাহার আলী। হামলায় জাকির হোসেনের ডান হাত ভেঙ্গে যায় ও মাথা ফেটে যায়। এসময় তাকে মেরে ফেলারও হুমকি দেয় তারা।
একই গ্রামের মৃত মহরম আলীর ছেলে মোসলেম আলীকে মারধর করে হাটু ভেঙ্গে দেয়। এছাড়া তাকে বাড়ি ছাড়তে বলে। যদি বাড়িঘর না ছাড়ে তাহলে মেরে ফেলার হুমকি দেয় তাদের কয়েক জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়।
এছাড়া বাজুখলসী সংলগ্ন হাটকানপাড়া বাজারের আনারুলের দোকান থেকে বিভিন্ন মালামাল নিলেও দাম দেয় না বলে অভিযোগ উঠেছে মেহেদী, শিমুল ও সুজনের বিরুদ্ধে। দাম না দিয়ে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে হুমকি দিয়ে যায় তারা।

এছাড়া তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন শিক্ষক, দোকানীসহ সাধারণ মানুষকে ভয়ভীতি দেখানো, প্রতারণা করে টাকা হাতিয়ে নেয়া, মারধর, ভাঙচুরের অভিযোগ করা হয়। এদিকে এসব বিষয়ে অভিযোগ নিয়ে স্থানীয় প্রশাসনের কাছে গেলে তাদেরকে পাত্তা দেইনি বলেও আবেদনপত্রে বলা হয়।

এ অবস্থায় ভুক্তভোগীরা এসব নিরসনে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

স/শা

সর্বশেষ - রাজশাহীর খবর