ডাকসুর সাবেক জিএস রাব্বানীকে নিয়ে জনপ্রিয় অভিনেত্রীর স্ট্যাটাস

  • 18
    Shares

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সাবেক জিএস ও ছাত্রলীগের সাবেক  সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী কয়েক দিন ধরে অসুস্থ। জ্বর, সর্দি-কাশি, শ্বাসকষ্ট ও শারীরিক দুর্বলতায় ভুগছেন তিনি। ৩ এপ্রিল নিজের ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে বিষয়টি জানিয়েছেন রাব্বানী। সেখানে তিনি জীবন নিয়ে শঙ্কার কথাও লেখেন।

রাব্বানীর আবেগী ফেসবুক পোস্ট মন ছুঁয়ে গেছে অনেকের। অনেকের মতো রাব্বানীর পাশে দাঁড়িয়েছেন স্টার জলসার ‘কে আপন কে পর’ সিরিয়ালের জনপ্রিয় অভিনেত্রী পল্লবী শর্মা। যাকে দুই বাংলার মানুষ ‘জবা’ নামে চেনেন। রাব্বানীর সুস্থতা কামনা করে নিজের ফেসবুক আইডিতে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন পল্লবী।

লিখেছেন— ‘মানুষের সেবা করার থেকে বড় ধর্ম কিছু হতে পারে না। আর সেই জনসেবা করতে গিয়ে কোভিড-১৯ পজিটিভ হলেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসুর সাবেক সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। হয়তো তার জন্মই হয়েছে মানুষের সেবা করার জন্য।’

তিনি আরও লেখেন— ‘এপার বাংলার সাথে ওপার বাংলার কোনো না কোনো যোগসূত্র থেকেই যায়, ঠিক তেমন ওপার বাংলায় থেকেও হাজার ব্যস্ততার মধ্যেও সব কথা শেয়ার করেছ। খোঁজখবর নিয়েছ— এটিই মানবতা। খুব তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে ওঠো। তোমার অপেক্ষায় আছে বাংলাদেশ।’

পল্লবীর দেওয়া স্ট্যাটাসটি নিজের ফেসবুক পেজে শেয়ার করেন গোলাম রাব্বানী।

এর আগে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নিজের অবস্থার আরও অবনতির কথা তুলে ধরেন রাব্বানী। তার ফেসবুকে লেখেন— ‘জ্বর, সর্দি-কাশি আর শারীরিক দুর্বলতার সঙ্গে গত দুদিন ধরে শ্বাসকষ্ট আর বুকে চাপ অনুভব করছি। গতরাতে কিছু সময়ের জন্য অক্সিজেন সিলিন্ডারও ব্যবহার করতে হয়েছে। যদি কিছু হয়ে যায়, যদি অকালে চলে যেতে হয়… এই আফসোস, হতাশা আর মনোকষ্ট নিয়েই যেতে হবে…।’
তার এই পোস্ট মনে ধরেছে পল্লবীর।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালে স্টার জলসায় শুরু হয়েছিল ‘কে আপন কে পর’ সিরিয়ালের প্রচার। এতে ‘জবা’ চরিত্রে অভিনয় করে দুই বাংলায় ব্যাপক পরিচিতি পেয়েছেন পল্লবী।  এই অভিনেত্রীর হৃদয় ছুঁয়ে গেছে রাব্বানীর পোস্ট।

 

সুত্রঃ যুগান্তর

শর্টলিংকঃ

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, silkcitynews@gmail.com ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন @silkcitynews.com আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।