জয়পুরহাটে একদিনে ২৩ করোনা রোগী শনাক্ত

নিউজ ডেস্ক
  • 12
    Shares

নিজস্ব প্রতিবেদক, জয়পুরহাট:
জয়পুরহাটে একদিনে সর্বোচ্চ করোনা শনাক্ত হয়েছে। গতকাল সোমবার একদিনে দুই দফার রিপোর্টে জেলাজুড়ে ২৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে এ জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭১ জনে, এতে করে রাজশাহী বিভাগের মধ্যে সর্বোচ্চ করোনা আক্রান্তের সংখ্যা হলো এই জেলা।

নতুন শনাক্ত হওয়া ২৩ জনের করোনাভারাইনের ফল সোমবার সিভিল সার্জন কার্যালয়ে এসেছে এর মধ্যে জয়পুরহাটের কালাই উপজেলায় নারায়নগঞ্জ ফেরত ১৪ জনের ও ক্ষেতলাল উপজেলায় ১ জন পাঁচবিবি উপজেলা ৫, সদর উপজেলা ৩ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস সনাক্ত হয়েছে।

জয়পুরহাটের সিভিল সার্জন ডাঃ সেলিম মিঞা মঙ্গলবার এ তথ্যে সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। সোমবার রাতে ও আজ মঙ্গলবার আক্রান্তদের আইসোলেশনে নেওয়া হচ্ছে। নতুন শনাক্ত হওয়া ব্যক্তিদের বেশিভাগই কমিউনিটি টান্সমিশনের মাধ্যমে আক্রান্ত হয়েছে।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের দেওয়া তথ্যনুযায়ী, জয়পুরহাট জেলার করোনা সন্দেহভাজনদের নমুনা পরীক্ষা প্রথমে ঢাকার রোগতত্ত্ব ও রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষনা ইনষ্টিটিউট (আইইডিসিআর) পাঠানো হয়েছে। পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ল্যাব স্থাপন করা হয়।

এরমধ্যে বেশিভাই নমুনা আইইডিসিআর ও বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে পরিক্ষা করা হয়। সোমবার রাতে আইইডিসিআর ও বগুড়া শজিমেক হাসপাতাল থেকে নমুনা পরীক্ষার ফল জয়পুরহাট সিভিল সার্জন কার্যালয়ে পাঠানো হয়। মঙ্গলবার দুপুরে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের ল্যাবরেটরি থেকে পাঠানো রিপোর্টে ৯৭ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৮২ জনের নেগেটিভ হলেও ১৫ জনের শরীরে করোনাভাইরাস সনাক্ত হয়।

এর আগে সোমবার রাতে ঢাকার আইইডিসিআরে থেকে পাঠানো রিপোর্টে জয়পুরহাটের ১৬৭ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৫৯ জনের নমুনা নেগেটিভ হলেও ৮ জনের শরীরে করোনাভাইরাস সনাক্ত হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন সিভিল সার্জন ডা: সেলিম মিঞা।

দ্বিতীয় দফার রিপোর্টে করোনা আক্রান্ত ১৪ জনই নারায়নগঞ্জ ফেরত কালাই উপজেলার মাদারপুর জিন্দারপুর গ্রামের বাসিন্দা, এর মধ্যে ২২ থেকে ৩২ বছরের তিনজন যুবক, ১৯ থেকে ২৮ বছরের পাঁচজন যুবতী, ১৫ বছরের কিশোর এবং ৩ বছরের শিশু রয়েছে এবং তারা নারায়নগঞ্জে গার্মেন্টস কর্মী ও বাসা-বাড়িসহ বিভিন্ন পেশায় কর্মরত। আরও একজন ক্ষেতলাল উপজেলার ঠনঠনিয়া তুলসীগঙ্গা গ্রামের ২০ বছরের যুবক।

প্রথম দফার রিপোর্টে ৮ জন করোনা আক্রান্তরা হলেন-পাঁচবিবি উপজেলার ধরঞ্জী ইউনিয়নের দৈবকনন্দনপুর গ্রামের পিতা-পুত্র-পুত্রবধু, সমসাবাদ গ্রামের ভারতের তীর্থ স্থান ফিরে আসা ৫৫ বছরের এক নারী, নন্দাইল গ্রামের ১৭ বছরের এক কিশোর এছাড়া সদর উপজেলার হানাইল গ্রামের ৪৭ বছরের স্বাস্থ্য সহকারী, উত্তর জয়পুর গ্রামের ৪০ বছরের এক নারী,জয়পুরহাট পৌর শান্তিনগর এলাকার ভাড়াটিয়া ৩২ বছরের যুবক জুপিটার ফার্মাসিউটিক্যালস্ ঔষধ কোম্পানীর প্রতিনিধি (রিপ্রেনজিটিভ)।

কালাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) ডাঃ আশিক আহমদ জেবাল বাপ্পী বলেন, করোনা আক্রান্ত ১৪ জনই নারায়নগঞ্জ থেকে মাইক্রোবাসযোগে কালাইয়ের মাদারপুর জিন্দারপুর গ্রামে আসার খবর পাওয়ার পেয়ে মাইক্রোবাস আটক করে তাদেরকে জয়পুরহাটের টিটিসি কেন্দ্রে প্রাতিষ্ঠানিক হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা অবস্থায় সবার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল, এরা নারায়নগঞ্জে বিভিন্ন পেশায় জড়িত।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা বলছেন, আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পেলেও আতঙ্কিত হওয়ার কিছুই নেই। সংক্রমিত হওয়ার সংখ্যা কমিয়ে আনতে জয়পুরহাট জেলাজুড়ে ভ্রাম্যমান বুথের মাধ্যমে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এতে সংক্রমিত ব্যক্তিদের চিহ্নিত করে তাঁদের দ্রুত আলাদা করা হচ্ছে।

প্রথমে কালাই উপজেলা থেকে ভ্রাম্যমান বুথের মাধ্যমে নমুনা সংগ্রহের কাজ শুরু হয়েছিল। কালাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) আশিক আহামেদ জেবাল ভ্রাম্যমান পদ্ধতিতে নমুনা সংগ্রহের প্রস্তবনা দেন। স্থানীয় সাংসদ ও জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন ও জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ তরুণ চিকিৎসক আশিক আহমেদ জেবালের প্রস্তাবনা গ্রহন করেন। এ পদ্ধতিতে তাঁকে নমুনা সংগ্রহে তাঁরা প্রয়োজনীয় সার্পোট দিয়েছেন। একই পদ্ধতিতে পুরো জেলায় নমুনা সংগ্রহের কাজ চলমান রয়েছে। তরুণ এই চিকিৎসকের উদ্যোগ ইতিমধ্যে কোভিড পরীক্ষায় ‘কালাই মডেল’ হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। দেশের বিভিন্ন স্থানে কোভিড পরীক্ষায় কালাই মডেল অনুসর করা হচ্ছে।

জয়পুরহাটের সিভিল সার্জন ডাঃ সেলিম মিঞা বলেন, জয়পুরহাটে এক দিনে ২৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। একদিনে আগে কখনো এত সংখ্যক ব্যক্তির করোনা শনাক্ত হয়নি। একদিনে এটি করোনা শনাক্তের সর্বোচ্চ সংখ্যা। এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। জেলার প্রথম করোনা আক্রান্ত দুই ব্যক্তিসহ চার জন সুস্থ হয়ে গোপীনাথপুর আইসোলেশন থেকে বাড়িতে ফিরেছেন। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ফেরত থাকলেও তাঁদের বেশিভাগই উপসর্গ বিহীন।

কমিউনিটি ট্রান্সমিশনের মাধ্যমেও অনেকেই আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের সোমবার রাত থেকেই আক্কেলপুর উপজেলার গোপীনাথপুর ইনস্টিটিউট হেলথ টেকনোলজির আইসোলেশনে (সেফ অতিথিশালা) নেওয়ার কাজ অব্যহত রয়েছে।

আরো পড়ুন …

জয়পুরহাটে বাসে মৃত্যু, করোনা সন্দেহে ছেলের মরদেহসহ মা’কে নামিয়ে দিল রাস্তায় (ভিডিও)

 

শর্টলিংকঃ

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, [email protected] ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন @silkcitynews.com আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।