ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা

নিউজ ডেস্ক
নিজস্ব প্রতিবেদক রাবি:
ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সুখরঞ্জন সমাদ্দার ছাত্র-শিক্ষক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের (টিএসসিসি) উপ-পরিচালক (সঙ্গীত) রকিবুল হাসান রবিনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।
বুধবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সকালে নগরীর মতিহার থানায় ভুক্তভোগী ছাত্রীর বাবা এ মামলা দায়ের করেন।
মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএসএম সিদ্দিকুর রহমান মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
তিনি বলেন, ‘ভুক্তভোগীর বাবা বাদি হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন। আমরা বিষয়টি তদন্ত করছি।’
মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, ২০১০ সালে তার মেয়ে ১২ বছর বয়সে রকিবুল হাসানের কাছে গান শিখতেন। রবিন বাড়িতে এসে গান শেখাতেন। এসময় রকিবুল পরিবারের সদস্যদের কাছে বিশ্বস্থ হয়ে উঠেন। এই সুযোগ ব্যবহার করে তার মেয়ের ওপর যৌন নির্যাতন করেছেন রকিবুল। তখন ভয়ভীতি দেখিয়ে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত করে একাধিকবার ধর্ষণ করেছেন। সে সময় ভুক্তভোগী এ বিষয়ে বাবা-মাকে বলতে সাহস করেননি।
এজাহারে আরও বলা হয়, বর্তমানে তার মেয়ে ভারতে একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ছেন। কয়েক মাস আগে দেশে ফিরে তার মেয়ে জানতে পারেন, রকিবুল আরও অনেক মেয়ের সঙ্গে এ রকম অনৈতিক কাজ করেছেন। এরপরই ভুক্তভোগী তাদেরকে (বাবা-মা) বিষয়টি বলেছেন। আর যেন কোনো মেয়ের ক্ষতি না করতে পারে, এছাড়া এই ঘটনার অন্যায়ের প্রতিবাদ করা উচিত। এরকম উপলব্ধি থেকে তার মেয়ে এর প্রতিবাদ করছেন।
এর আগে, গত ২৩ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের কাছে জমা দেওয়া লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে যৌন নির্যাতন প্রতিরোধ সেল তদন্ত করছে। গত ২ সেপ্টেম্বর উপাচার্য দপ্তর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সেলে পাঠানো অভিযোগের বিষয়ে ৯ সেপ্টেম্বর একটি সভা হয়েছে।
এ বিষয়ে যৌন নির্যাতন প্রতিরোধ সেলের সভাপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক রেজিনা লাজ বলেন, ‘আমরা অভিযোগ পাওয়ার পর প্রথম সভা করেছি। ঘটনাটি অনেক আগের। আমরা দ্রুত সময়ের মধ্যে তদন্ত শেষ করার চেষ্টা করছি।
শর্টলিংকঃ

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, [email protected] ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন @silkcitynews.com আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।