খালেদা জিয়া অনেক বেশি অসুস্থ, চিকিৎসকরা চিন্তিত : মির্জা ফখরুল

সিল্কসিটি নিউজ ডেস্ক :

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে দেখতে যাওয়ার কথা উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ম্যাডামের এই রকম চেহারা আগে কখনও দেখিনি। যে নেত্রী সবসময় শক্ত মন নিয়ে সব প্রতিকূলতাকে কাটিয়ে ওঠেন, তিনি পাঁচ বছর বন্দি থাকা অবস্থায় কখনও তার চোখে পানি দেখিনি, গতকাল তাকে অত্যন্ত অসুস্থ দেখেছি। প্রথমবারের মতো মনে হয়েছে সত্যি আমাদের মাতা, নেত্রী অনেক বেশি অসুস্থ। আমরা তার চিকিৎসার সুযোগ পাচ্ছি না।

খালেদা জিয়া এখনও গৃহবন্দি উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, চিকিৎসকরা খালেদা জিয়াকে নিয়ে চিন্তিত। আমি যখন চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়েছি তখন চিকিৎসকরা বললেন, আপনাদের কিছু করার থাকলে করেন। দেশনেত্রীর শারীরিক অবস্থা ভালো নয়।

অবিলম্বে বিদেশে নিয়ে খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসা দিতে না পারলে বাঁচানো কঠিন হবে বলেও দাবি করেন মির্জা ফখরুল।

রোববার (২৪ সেপ্টেম্বর) নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর দাবিতে আয়োজিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ফখরুল।

মির্জা ফখরুলের বক্তব্য চলাকালে মঞ্চের সামনে থেকে একজন কর্মী হঠাৎ করে স্লোগান দিয়ে ওঠেন। এই সময় কিছুটা ক্ষিপ্ত হয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, এই ছেলে শুরু থেকে এমন করছে। যারা এমন করে তারা সরকারের দালাল। এদেরকে চিহ্নিত করে রাখুন। এরা বিএনপি কিংবা ছাত্রদলের বন্ধু নয়।

সমাবেশে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, একই ধরনের মামলায় আওয়ামী লীগের তিন (নাম উল্লেখ করে) নেতা জামিন পেয়েছেন। আর খালেদা জিয়ার বেলায় বিচারপতি বললেন, মুক্তি দেবেন না। দেশের মানুষ একদিন এই বিচারকের বিচার করবে।

সমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, এখন আমাদের আন্দোলন ‘ডু ওর ডাই’। মাঝামাঝিতে কোনো ঠাঁই নাই। মরতে হলে মরতে হবে, গুলি খেতে হলে খেতে হবে, এরপরও এ সরকারকে সরাতে হবে। পিছু হটা যাবে না।

পুলিশ যা বাড়াবাড়ি করছে তার চেয়ে বেশি খারাপ আচরণ আদালত বিএনপির প্রতি করছে বলেও দাবি করেন গয়েশ্বর।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আবদুস সালামের সভাপতিত্বে ও উত্তর বিএনপির সদস্যসচিব আমিনুল হকের সঞ্চালনায় সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী প্রমুখ।