করোনা : হঠাৎ ১০০ নিচে নেমে এসেছে রাজশাহী বিভাগে শনাক্তের সংখ্যা

ছবিতে রাজশাহী বিভাগের আটটি জেলার মানচিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদক :
রাজশাহী বিভাগে গত ২৪ ঘন্টায় মাত্র ৬৭ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে।  যা গত দুই মাসে প্রতিদিনকার শনাক্তের তুলনায় সর্বনিম্ন। তবে গত ২৪ ঘন্টায় মারা গেছে আরো ৫জন রোগী। রাজশাহী বিভাগের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মোট মৃতের সংখ্যা এখন ১৮৩ জন। আর মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১৩ হাজার ৩৫৬ জন।

আজ মঙ্গলবার (৪ আগস্ট) রাজশাহীর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. গোপেন্দ্রনাথ আচার্য্য এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘন্টায় আরো ২৫৮ জনসহ মোট সুস্থদের সংখ্যা এখন ৭ হাজার ৪০২ জন। বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে ১ হাজার ২৯৫ জন। গত ২৪ ঘন্টায় ৫জন মৃতদের মধ্যে রাজশাহী জেলার ২জন, বগুড়া জেলার ২ ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের ১জন।

এদিকে বিভাগে এপর্যন্ত করোনা আক্রান্ত মোট ১৮৩ জন মারা গেছেন। মৃতদের মধ্যে, রাজশাহী জেলায় ২৭জন, বগুড়ায় ১০৯ পাননায় ৯, নওগাঁয় ১৪, সিরাজগঞ্জে ১১ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৮ জন, জয়পুরহাটে ৪ জন এবং নাটোরে মোট ১জন করোনা আক্রান্ত রোগী মারা গেছেন।

গত ২৪ ঘন্টায় ৮টি জেলার মধ্যে রাজশাহীতে ৩১জন, বগুড়ায় ৩২ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৩জন ও জয়পুরহাটে ১ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে। তবে সিরাজগঞ্জ, নওগাঁ, নাটোর ও পাবনায় নতুন করে করোনা রোগী শনাক্ত হয়নি।

রাজশাহী বিভাগের ৫টি ল্যাবে করোনা আক্রান্তদের শনাক্তে নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। এর মধ্যে রাজশাহী জেলায় দুইটি, বগুড়া জেলায় দুইটি ও সিরাজগঞ্জে একটি। এই ৫টি ল্যাবে বিভাগের ৮টি জেলার সন্দেহভাজন করোনা আক্রান্তদের শনাক্তে নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। পাবনার ল্যাবটি চালুর পর্যায়ে রয়েছে।

জানা গেছে, বিভাগের সর্বোচ্চ আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে বগুড়া জেলায়। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজার ৯৫৮ জন। পরের অবস্থানে রয়েছে রাজশাহী জেলা। সেখানে শনাক্তের সংখ্যা ৩ হাজার ৩২৩ জন। তৃতীয় অবস্থানে সিরাজগঞ্জে শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৪৭২ জন।

এছাড়া নওগাঁ জেলায় ৯৫৮, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৪৮৭ জন, নাটোরে ৫৪৪ জন, পাবনা ৮৫২ জন এবং জয়পুরহাটে ৭৬২ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে।

স/রা

শর্টলিংকঃ

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, silkcitynews@gmail.com ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন @silkcitynews.com আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।