করোনা তহবিল সংগ্রহে ফ্রেডের ৬০০ কি.মি. সাইকেল যাত্রা

নিউজ ডেস্ক

খেলোয়াড়ি জীবনের ১৮ বছরের মধ্যে সাতটি মৌসুমই ফ্লুমিনেজে কাটিয়েছেন ব্রাজিলিয়ান তারকা ফরোয়ার্ড ফ্রেড। ২০১৬ সালে ক্লাব ছেড়ে পাড়ি জমান অন্যত্র। এবার ক্যারিয়ারের শেষপর্যায়ে এসে ফের ফ্লুমিনেজে নাম লিখিয়েছেন ফ্রেড।

গত রোববার (৩১ মে) ব্রাজিলেরই আরেক ক্লাব ক্রুজেরো থেকে দুই মৌসুমের জন্য ফ্লুমিনেজে যোগ দিয়েছেন ফ্রেড। পরদিনই তিনি দিয়েছেন মহৎ এক ঘোষণা, নতুন ক্লাবে যোগ দেয়ার যাত্রায় তিনি খাবার ও অর্থ সংগ্রহ করবেন ৪ হাজার পরিবারের জন্য।

ফ্রেডের প্রাক্তন ও বর্তমান দুই ক্লাবের মধ্যবর্তী দূরত্ব প্রায় ৬০০ কিলোমিটার। এ পুরোটা পথ তিনি পাড়ি দিচ্ছেন সাইকেল চালিয়ে। আর এ যাত্রার মধ্যেই করোনা দুর্গত ৪ হাজার পরিবারের জন্য প্রয়োজনীয় খাদ্য এবং অন্যান্য জিনিসপত্র সংগ্রহের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ফ্রেড।

রোববার চুক্তি সাক্ষর করার পরদিনই এ মহৎ উদ্যোগের ঘোষণা দিয়েছেন ফ্রেড। এ ৬০০ কিমি যাত্রার প্রতি কিলোমিটার শেষে সবার উদ্দেশ্যে খাদ্য সংগ্রহের ঝুড়ি বাড়িয়ে দেবেন তিনি। এছাড়া অনলাইনের মাধ্যমে সংগ্রহ করবেন অর্থ সাহায্য।

করোনাভাইরাসের স্বাস্থ্যবিধিও ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণের পাশাপাশি ভক্তরা যেন কাছাকাছি এসে ভিড় না জমায়, তাই শহরের বড় রাস্তা বাদ দিয়ে, ছোট ছোট পাড়া-মহল্লার রাস্তা ধরে এগুচ্ছেন তিনি। এভাবে সাইকেল চালালে বেলো হরিজোন্তে থেকে রিও ডি জেনিরোতে পৌঁছতে পাঁচদিনের মতো লেগে যাবে তার।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইন্সটাগ্রামে সোমবার নিজের প্রোফাইলে ফ্রেড লিখেছেন, ‘ফ্লুমিনেজের ট্রেইনিং সেন্টারে যোগ দেয়ার পথে ৪ হাজার পরিবারের জন্য খাদ্যদ্রব্য সংগ্রহের যাত্রা শুরু করছি আমি। এই যাত্রায় আমি আপনাদের ওপরই নির্ভর করছি। আমি সাইকেল চালাচ্ছি, আপনারা ঘরে বসে অনুদান দিন। আমরা সবাই মিলে ভালো কিছু করতে পারব।’

ফ্লুমিনেজের হয়ে আগের দফায় সাত মৌসুম খেলে ১৭২ গোল করেছিলেন ফ্রেড, হয়েছিলেন ক্লাবের ইতিহাসের তৃতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা। এবার নিজের গোল সংখ্যাকে আরও বাড়াবেন ফ্রেড, এমনটাই আশা ভক্ত-সমর্থকদের।

 

সুত্রঃ জাগো নিউজ

শর্টলিংকঃ

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, [email protected] ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন @silkcitynews.com আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।