ইমার্জেন্সি ভেন্টিলেটর তৈরি করলো রুয়েট শিক্ষার্থীরা

নিউজ ডেস্ক

নিজস্ব প্রতিবেদক:

দেশে ভেন্টিলেটর সংকট সমস্যার সমাধানের লক্ষ্যে ‘দুর্বার কান্ডারী ইমার্জেন্সি ভেন্টিলেটর’ নামে ভেন্টিলেটর তৈরি করেছেন রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রুয়েট) একদল শিক্ষার্থী।

মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) দুপুরে রুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের হল রুমে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ভেন্টিলেটরটির উদ্বোধন করা হয়।

রুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রফেসর মাসুদ রানার তত্ত্বাবধানে দুই মাসের বেশি সময় পরিশ্রম করে ‘দুর্বার কান্ডারী’ নামে একটি টিম ইমার্জেন্সি ভেন্টিলেটর তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে।

টিমের সদস্যরা হলেন- রুয়েটের ইইই বিভাগের মো. রাফিউল ইসলাম, মো. মাহমুদুল হাসান, এমটিই বিভাগের ওয়াসিফ আহমেদ, এমই বিভাগের রাফি রহমান, মো. রফি উদ্দিন (এমই’১৫) ও সিএসই বিভাগের মো. মাশরুর সাকিব।

সংবাদ সম্মেলনে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর মো. রফিকুল ইসলাম সেখ বলেন, দুর্বার কান্ডারী ইমার্জেন্সি ভেন্টিলেটর এর মাধ্যমে বাংলাদেশের ভেন্টিলেটর সংকট সমস্যার সমাধান হবে-এটাই আমাদের প্রত্যাশা। রুয়েটের শিক্ষার্থীবৃন্দ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ইন্টারনেটের মাধ্যমে একত্র হয়ে এই ভেন্টিলেটর তৈরির কাজ সম্পন্ন করেছেন এবং এটি আরোও উন্নত করার জন্য তারা দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

টিম দুর্বার কান্ডারীর তত্ত্বাবধায়ক এবং প্রকল্প পরিচালক অধ্যাপক মো. মাসুদ রানা বলেন, এই ভেন্টিলেটরটি মাত্র ৩০-৩৫ হাজার টাকা ব্যয়ে তৈরি করা সম্ভব। এটি কেবলমাত্র করোনা আক্রান্ত রোগীদের চাহিদার কথা ভেবে প্রস্তুত করা হয়েছে। করোনা মহামারি এবং লকডাউনের সময় গঠিত হওয়া টিম দুর্বার কান্ডারী রুয়েট এই ভেন্টিলেটরটি প্রস্তুত করেছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- রুয়েটের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার প্রফেসর মো. সেলিম হোসেন, পরিচালক পরিকল্পনা ও উন্নয়ন দপ্তরের পরিচালক প্রফেসর মিয়া মো. জগলুল সাদত, গবেষণা ও সম্প্রসারণ দপ্তরের পরিচালক প্রফেসর মো. ফারুক হোসেন, ইসিই বিভাগের সভাপতি ড. মো. শামীম আনোয়ার প্রমুখ।

স/অ

শর্টলিংকঃ

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, [email protected] ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন @silkcitynews.com আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।