আমি ছবি আঁকি বলে এত হিংসা? : মমতা

রাজ্যে বিধানসভা ভোট যত এগোচ্ছে রাজনৈতিক উত্তেজনার পারদ ততই চড়ছে। এবার নবান্নের সাংবাদিক বৈঠক থেকে বিজেপি-সহ বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলিকে পাল্টা আক্রমণের পথে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিভিন্ন সময়ে মুখ্যমন্ত্রীর ছবি-আঁকা নিয়ে কটাক্ষ করতে দেখা গিয়েছে বিজেপি-সহ একাধিক বিরোধী দলের নেতাদের। এদিন তাঁদেরই জবাব দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রশাসনিক ও রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড সামলানোর পাশাপাশি কখনো ছবি এঁকে কখনও আবার বই লিখে সময় কাটান মুখ্যমন্ত্রী। কখনও আবার তাঁর লেখা গানের সিডিও প্রকাশিত হয়। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, তাঁর আঁকা ছবি বিক্রি, বই লেখা বা গানের সিডি বিক্রির টাকা কখনও মুখ্যমন্ত্রী, রাজ্যপালের ত্রাণ তহবিলে দেওয়া হয়।

কখনও আবার নিজের সেই টাকা তিনি দলের কাজেও ব্যবহার করেন। বিজেপি ও বিরোধী একাধিক দলের নেতা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শিল্পী-সত্ত্বা নিয়ে প্রায়ই কটাক্ষ করেন। এদিন সাংবাদিক বৈঠকে সেই কটাক্ষের পাল্টা জবাব দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মমতার ঘনিষ্ঠ এক নেতা বলেন এই প্রশ্ন করার মাধ্যমে উনি বাঙালির পরশ্রীকাতরতা কে আক্রমণ করেছেন। ছবি আঁকার টাকা তো মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল, রাজ্যপালের ত্রাণ তহবিলে যায়।

মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেন, ‘‘আমি ছবি আঁকি বলে এত হিংসা? ছবি আঁকার টাকা তো মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল, রাজ্যপালের ত্রাণ তহবিলে যায়। আমি বই লিখি, গানের সিডি বানাই। সেখান থেকে যা পাই তা যদি দলের কাজে ব্যবহার করি তাতে আপত্তি কীসের? আপনাদের তো হাজার-হাজার কোটি টাকার কোনও হিসেবই নেই।’’

শর্টলিংকঃ

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, silkcitynews@gmail.com ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন @silkcitynews.com আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।